যশোররে ইছালী ইউনয়িনে আবারো বপেরোয়া জুয়লেরে সন্ত্রাসী বাহনিী

26

স্টাফ রির্পোটার, যশোর : মামলার আসামী অস্ত্রধারী হাসমিপুররে মোহাম্মদ জুয়লে বাহনিী আবারো বপেরোয়া হয়ে উঠছে।ে প্রকাশ্যে অস্ত্রসহ ঘুরাঘুরি করছ।ে একালাবাসীর মধ্যে আতংক বরিাজ করছ।ে রাত হলইে তারা এলাকায় মাদক, ডাকাতি সহ বভিন্নি ধরণরে সন্ত্রাসী র্কমকান্ডরে আকড়ায় পরণিত করছে।ে জুয়লে যশোর সদর উপজলোর ইছালী ইউনয়িনে হাসমিপুর গ্রামরে আমজদে কসাইয়রে ছলে।ে হাসমিপুর এলাকার শান্তর বাগানে তার একটি ঘরো। এখানে একটা কুড়ে ঘরে গড়ে তুলেেছ র্টচার সলে। এখান থেেক সকল র্কমকান্ড পরচিালতি হয়।

এলাকাবাসী জানায়, জুয়লে বাহনিী তরৈী প্রতনিয়িত সন্ত্রাসী র্কমকান্ড চালেিয় যাচ্ছ।ে এরা জামায়াত-বএিনপরি আমলে বএিনপরি আশ্রয়-প্রশয়ে ছলি। এখন তারা নব্য আওয়ামী লীগ হয়ে তাদরে র্কমকান্ড চালাচ্ছ।ে জুয়রে অন্যতম সহযোগি এলাকার ডাকাত দলরে সরদার বুলি ডাকাতরে ছেেল মুন্না ওরফে পচ্িিচ মুন্না । ডাকাতি করতে যেেয় ক্রস ফায়ারে নহিত হয় বুলুি ডাকাত। তার পতিার মৃত্যুর পর বাহনিী চালাচ্ছে ছেেল মুন্না ও জুয়লে। অস্ত্রধারী ডাকাত জুয়লে ও মুন্না র্দীঘদনি ধরে এলাকায় চাঁদাবাজ,ি ডাকাত,ি জমি দখল সহ সকল অপর্কম চালায়। এমন কি হত্যা গুম-খুনরে অভেিযাগও তাদরে বরিুদ্ধে রয়ছে।ে এ বাহনিীতে আরো যারা রয়েেছ তারা হলনে ইদ্রসি, রজিাউল সহ আরো অনেেক ।
জুয়লে বাহনিীর সকেন্ডে ইন কমান্ড মুন্না। অস্ত্রধারী ডাকাত জুয়লে বাহনিীর কমান্ডার মুন্নার ভয়ে এলাকার শান্তি প্রয়ি নারী-পুরুষ ঠকি মতো ঘরে ঘুমাতে পারনো ।

এলাকার বখাটদেরে নেিয় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহনিী গড়ে তুলেেছ এ জুয়লে ও মুন্না। এ বাহনিী সম্প্রতি বাহাদুরপুর গ্রামে হাসানরে বাড়েিত ডাকাতি করতে পারে বলে ধারণাা করছনে এলাকাবাসী। তারা একটি মটর সাইকলে ও নগদ র্অথ লুট কর।ে ভুক্তভোগী পরবিার মামলা করলওে কারোর নাম উল্লখে করিেন নরিপত্তার ভয়ে ।

গত ইউনয়িন পরষিদ নর্বিাচনে হাসান কে জুয়লে অস্ত্র ঠকেেিয় গুলি করলওে অল্পরে জন্য প্রাণে বঁেচে যায় । এ ঘটনাই মামলা করে হাসান। এখন সইে মামলা তুলে নওেয়ার হুমকি দচ্েিছ জুয়লে ও তার বাহনিী। চরম নরিাপত্তাহীনতায় ভুগছে হাসান। অস্ত্রধারী ডাকাত, চাঁদাবাজ ও ছনিতাইকারী, ইভটজিংি, র্ধষণ, জমি দখল এইসব অপর্কম থেেক রহোই পেেত এলাকাবাসী প্রশাসনরে র্ঊধতন র্কতৃপক্ষরে দৃষ্টি কামনা করছনে।

কোতয়ালী মডলে থানার ওসি মনরিুজ্জামান বলনে, জুয়লেকে গ্রফেতার করতে একাধকি বার অভযিান চালানো হয়েেছ তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। অভযিান অব্যবহত থাকবে তাকে গ্রফেতার করে বচিাররে মুখোমুখি করা হবে