ইসরায়েলি হামলায় ৩২ ফিলিস্তিনির মৃত্যু

0

ডেস্ক নিউজ:ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বাহিনীর গত দু’দিনের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩২ জনে দাঁড়িয়েছে। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ খবর নিশ্চিত করেছে। এদিকে দু’দিন ধরে চলা এই হামলা পাল্টা হামলা বন্ধ করতে অস্ত্র বিরতিতে সম্মত হয়েছে উভয় পক্ষ।
মিসর, জাতিসংঘ ও ফিলিস্তিনি সূত্রের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এখবর জানিয়েছে। তারা জানায় বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সাড়ে পাঁচটা থেকে এটি কার্যকর করা হয়েছে। তবে ইসরায়েলের পক্ষ থেকে অস্ত্র বিরতির বিষয়টি এখনো নিশ্চিত করা হয়নি।

এদিকে অস্ত্র বিরতি চুক্তি কার্যকরের ঠিক আগ মুহূর্তে ইসরায়েলি বিমান হামলায় এক ইসরায়েলি পরিবারের আট সদস্য নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা ও গোলা বর্ষণ শুরু করে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। ইসরায়েলি বিমান হামলায় ইসালামি জিহাদ বাহিনী (পিআইজে) এর কমান্ডার নিহত হলে এই সহিংসতা শুরু হয়।

পিআইজে’র অন্যতম শীর্ষ নেতা আবু আল আত্তা (৪২) ও তার স্ত্রীকে হত্যা করে ইসরায়েলি বাহিনী। অন্যদিকে সিরিয়ায় হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয় তাদের ছেলেকেও। এই আগ্রাসনের জবাবে মঙ্গলবার ভোরে গাজা উপত্যকা থেকে ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে রকেট ছোড়া শুরু হয়। এরপরই গাজায় বিমান হামলা ও গোলাবর্ষণ শুরু করে ইসরায়েল।

দুই দিনের ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ জনে। আহত হয়েছেন শতাধিক লোক।

পিআইজে’র এক মুখপাত্র বিবিসিকে বলেছেন, গাজার স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে পাঁচটা থেকে অস্ত্র বিরতি শুরু হয়েছে।

মিসরের এক উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, মিসরের মধ্যস্থতায় এই অস্ত্র বিরতি বাস্তবায়িত হচ্ছে।

জাতিসংঘের মধ্যপ্রাচ্য শান্তি বিষয়ক দূত নিকোলাই ম্লাদেনভ বলেছেন, জাতিসংঘ ও মিসর উভয় পক্ষই গাজাকে ঘিরে বিপজ্জনক পরিস্থিতির দিকে অগ্রসরতা ঠেকাতে কঠোর প্রচেষ্টা চালিয়েছে। এক টুইট বার্তায় তিনি উভয় পক্ষকে প্রাণহানি এড়াতে ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানিয়েছেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, একটি রকেট নিক্ষেপ ছাড়া গাজা মূলত নীরব ছিল। তবে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী সাড়ে ছয়টার পরও সতর্কতা সংকেত বাজিয়ে গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here