ব্রাজিল ১২ বছর পর চ্যাম্পিয়ন

63

ক্রীড়া ডেস্ক:সবশেষ ২০০৭ সালে কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছিল ব্রাজিল। এরপর মাঝে কেটে গেছে ১২ বছর। মাঠে গড়িয়েছে কোপা আমেরিকার তিন-তিনটি আসর। কিন্তু ব্রাজিল আর শিরোপা জিততে পারেনি।

এক যুগ পর অবশেষে কোপা আমেরিকার শিরোপা-খরা কাটাল তিতের শিষ্যরা। রোববার দিবাগত রাতে ফাইনালে পেরুকে ৩-১ গোলে হারিয়ে নবম শিরোপা ঘরে তুলেছে ব্রাজিল। এর মধ্য দিয়ে ঘরের মাঠে আয়োজিত প্রত্যেকটি কোপা আমেরিকার শিরোপা জয়ের রেকর্ড অক্ষুণ্ণ রাখল ব্রাজিল। অবশ্য এর আগে সবশেষ তারা কোপা আমেরিকার আয়োজক হয়েছিল ১৯৮৯ সালে।

৩০ বছর পর ঘরের মাঠে আবারও চ্যাম্পিয়ন হলো তারা। তাও আবার দশজন নিয়ে খেলে। ম্যাচের ৭০ মিনিটে গ্যাব্রিয়েল জেসুস দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। বাকি সময় দশজন নিয়েই খেলে সেলেসাওরা।

ঘরের মাঠ মারাকানা স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১৫ মিনিটেই পেরুর বিপক্ষে লিড নেয় ব্রাজিল। এ সময় জেসুসের ক্রস থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে বল জালে জড়ান সৌসা এভারটন (১-০)। ম্যাচের ৪৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে সমতায় ফেরে পেরু।

এ সময় পেনাল্টি এরিয়ায় থিয়াগো সিলভার হাতে বল লাগলে রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দেন। ব্রাজিল ভিএআর নিলেও রেফারির সিদ্ধান্ত বহাল থাকে। পেনাল্টি থেকে পাওলো গুয়েরেরো গোল করে সমতা ফেরান। তবে বেশিক্ষণ এই সমতা স্থায়ী হয়নি। যোগ করা (৪৫+৩ মিনিট) সময়ে জেসুস গোল করে সেলেসাওদের আবারও এগিয়ে নেন। তাকে গোলে সহায়তা করেন আর্থার।

বিরতির পর উভয় দল মরিয়া হয়ে খেলে। কিন্তু গোলের দেখা পাচ্ছিল না কেউই। উল্টো ম্যাচের ৭০ মিনিটে জেসুস দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় ব্রাজিল। বাকি সময় দশজন নিয়েই খেলে তারা।

ম্যাচের ৯০ মিনিটে পেনাল্টি পায় স্বাগতিকরা। এ সময় এভারটন বল নিয়ে ডি বক্সের মধ্যে ঢুকলে তাকে ফাউল করেন পেরুর কার্লোস জামব্রানো। রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দেন। ভিএআরেও রেফারির সিদ্ধান্ত বহাল থাকে। পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্রাজিলের ৩-১ ব্যবধানের জয় নিশ্চিত করেন বদলি খেলোয়াড় রিচার্লিসন।