২২ বছরের মধ্যে বিয়ে না হলেই মেয়েদের সমস্যা!

228

লাইফস্টাইল ডেস্ক:নারী আর পুরুষের সমান অধিকারের কথা বলে থাকলেও মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রচলতি ধ্যান ধারণা আজও রয়ে গেছে। একটি মেয়ের জীবনের মূল লক্ষ্যই বিয়ে, আর এটিই সমাজ এখনো বিশ্বাস করে থাকে। কথায় বলে আছে মেয়েরা কুড়ি হলেই বুড়ি।

কিন্তু কখনো কী ভেবে দেখেছি কেনো এ কথা আমরা বলি। দেখা যায়, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ২২ বছর বয়স হলেই মেয়েদের বিয়ে করিয়ে দেয়ার জন্য নানান দিক থেকে সম্বন্ধ আসতে থাকে। প্রতিবেশিদের চাপের কারণে এক সময় সেটি হয়ে যায়, মা’র থেকে মাসির দরদ বেশি এর মতো।

আসুন এক ঝলকে দেখে নেই, ২২ বছরের মধ্যে মেয়েদের বিয়ে না হলে কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় :-

প্রথমত হল, বাড়িতে সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠার পরে মেয়ের বিয়ে হচ্ছে না বলে বাবা-মায়ের ঘুম হারাম হয়ে যায়। অনেক সময় নিজের বাবা-মাকে চিন্তা করতে দেখে মেয়েরাই নিজেদেরকে অপরাধী মনে করতে থাকে।

দ্বিতীয়ত হল, যদি কখনো কোনো মেয়ে নিজের কাজের জন্য বাইরে যায় তাহলে চারপাশে লোকজনের কথা শূনতে হয়। এছাড়া ‘আইবুড়ো’ শব্দটা যেন তাদের কাছে একটা পরিচিত শব্দ হয়ে যায়। যা মেয়েদের কাছে সত্যিই মারাত্মক অস্বস্তির কারণ।

তৃতীয়ত হল, কোনো বিয়ে বাড়িতে অথবা অনুষ্ঠান বাড়িতে অবিবাহিতা মেয়েরা যেতে পারেন না। কারণ সেখানে মনের আনন্দে সেজে গুজে গিয়ে খাওয়া দাওয়া করা যায়না। সেখানেও একই রকম প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়।

চতুর্থত হল, আপনার হয়তো একটু বয়স হয়ে গিয়েছে কিন্তু বিয়ে হয়নি, তাই তিনি ঠিক কেমন পোশাক পরবেন তা নিয়েও সবার মধ্যেই একটা দ্বন্দ্ব থাকে। বেশি জমকালো পোশাক পরলে অনেকেই সমালোচনা করতে শুরু করে। কেউ কেউ এমন পোশাক না পরার জন্য আদেশ দেন।

পঞ্চম, যদি একটু বয়স বেশি বয়স হয়ে যায় তাহলে কোনো অনুষ্ঠান বাড়িতে গিয়ে একটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মধ্যে পরতে হয়। কারণ দেখে খারাপ লাগে যখন সমবয়সীরা এমনকী নিজের থেকেইও ছোটরাও যেখানে স্বামীর অথবা বয়ফ্রেন্ডের হাত ধরে সেখানে যাচ্ছে সেখানেই সঙ্গীবিহীন।

ষষ্ঠত, ২২ বছর হয়ে গেলেও যে নারীর বিয়ে হয়নি তার নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কারণ এই একা মহিলাদের অনেকেই সহজলভ্য মনে করে এবং নানা রকম কুপ্রস্তাব দেন। এমনকী এমনও হয়েছে একা রয়েছেন বলেই অনেক পুরুষেরও শিকার হয়ে যান।

সপ্তমত, কোনো মেয়ে বিয়ে না করে একা রয়েছেন, এটা শুনলে অনেকেই তাকে ভাল চোখে দেখবেন না এবং একটি অবিবাহিত মহিলা সম্পর্কে নানান মিথ্যা দুর্নাম রটানো হয়।