এমপি ফারুক চৌধূরী আওয়ামী লীগের চেতনাবিরোধী !

200 views

আলিফ হোসেন, তানোর (রাজশাহী):
রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) সংসদীয় আসনে তিন বারের নির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও রাজশাহী চেম্বর অব কমার্সের সভাপতি, সিআইপি, রাজশাহীর সর্বোচ্চ স্বচ্ছ আয়কর দাতা, বৃক্ষরোপণে বিশেষ অবদান রাখায় রাস্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী পদক অর্জনকারী, আদর্শীক ও পরীক্ষিত নেতৃত্ব বিলাস-প্রচার বিমূখ, সৎ রাজনৈতিকের প্রতিকৃতি, কর্মী ও জনবান্ধব রাজনৈতিক তথা গণমানুষের নেতা সবার প্রিয় আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধূরী এমপির বিরুদ্ধে ফের অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে জামায়াত-বিএনপির আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতায় আওয়ামী লীগের বিপদগামী কতিপয় নেতার নেপথ্যে মদদে গড়ে উঠা একটি অশুভ সিন্ডিকেট চক্র। সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে এই সিন্ডিকেট চক্রের পালের গোদা গণমানুষের নেতা এমপি ফারুক চৌধূরীকে আওয়ামী লীগের চেতনবিরোধী বলে আঙ্খ্যায়িত করেছে। অথচ এমপি ফারুক চৌধূরী আওয়ামী লীগের চেতনাবিরোধী না চেতনাবান্ধব সেটা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে এমপি ফারুক চৌধূরী আশার আগের ও পরের অবস্থান পর্যালোচনা করলেই স্পস্ট হবে,আর যারা তাকে আওয়ামী লীগের চেতনাবিরোধী অ্যাঙ্খা দিয়েছে তারা আওয়ামী লীগের জন্য কি করেছে। তবে হ্যাঁ তাদের একটা কাজ হয়েছে এক সময় তাদের অধিকাংশ মোটরসাইকেল ও বাইসাইকেলে চলাফেরা করলেও এখন অনেকের তিন-চারটি বিলাসবহুল গাড়ি-বাড়ি হয়েছে, ব্যাংক ব্যালেন্স বেড়েছে কেউ কেউ তো আবার এমপি হবার খোয়াব দেখে তৃণমূলের প্রতিরোধের মূখে নিজ ঘরে পরবাসী হয়ে দলের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারা জানেন এমপি ফারুক চৌধূরী নেতৃত্বে থাকলে তাদের কোনো ষড়যন্ত্রই কাজে আসবে না তাই তাদের একটাই উদ্দেশ্যে যেকোনো মূল্য এমপি ফারুক চৌধূরীকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া। আর এসব কারণে তারা এমপি ফারুক চৌধূরীর বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে। কিšত্ত তাদের সব চেস্টাই বার বার বৃথা হচ্ছে জন ও কর্মীবান্ধব এই রাজনৈতিক নেতার কাছে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, ইতি পূর্বে অশুভ চক্রটি এমপি ফারুক চৌধূরীর বিরুদ্ধে মাদকের পৃষ্ঠপোষক, জামায়াত-বিএনপির আশ্রয়-প্রশ্রয়দাতা ইত্যাদি এমন বাল্পনিক মিথ্যা-বানোয়াট অভিযোগ উঙ্খাপন করে তৃণমূলের তোপের মূখে নিজেরাই নিজ ঘরে পরবাসী ও বাঁবুইভেঁজা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে ঘরে ঢুকে পড়েছে। আর এই অশুভ চক্রের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের দুই পান্ডা তবে এক পান্ডা রসাতলে অপর পান্ডা ছিপের ফাতার মতো উঠানামা করছে তার সময় ঘনিয়ে এসেছে। এমপি ফারুক চৌধূরী যদি আওয়ামী লীগের চেতনাবিরোধী হয় তাহলে আওয়ামী লীগের চেতনাবান্ধব কারা ? বিগত দিনে যারা অবৈধ অর্থের লালসায় জেলা পরিষদ নির্বাচনে দলের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মনোনিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ভোট করে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পরাজয় ঘটিয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন তারা ? না কি একাদ্বশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপিদের বিরোধীতার কথা বলে এমপিবিরোধী বলয় সৃস্টির নামে দলের মধ্যে কোন্দল সৃষ্টি করে আওয়ামী লীগের অত্যন্ত সম্ভবনাময় গোছানো ভোটের মাঠ নস্ট ও জামায়াত-বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়নে কাজ করেছে তারা ? না কি উপজেলা-পৌরসভা ও ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীদের এমপি অনুসারী বলে যারা দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করেছে তারা ? তারাই যদি আওয়ামী লীগের মূল চেতনাবান্ধব হয় তাহলে তারা মাঠে নেমে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সংগঠিত করছে না কেনো তা না করে ঘরে বসে এসব প্রাসাদ-ষড়যন্ত্র কেনো। অথচ আওয়ামী লীগের বিপদগামী একশ্রেণীর নেতার সমন্বয়ে গড়ে উঠা এই অশুভ চক্রের মদদে এমপি ফারুক চৌধূরীর বিরুদ্ধে মিথ্যা-বানোয়াট ও উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত খবর প্রকাশ করেছে একশ্রেণীর গণমাধ্যম কর্মী। এদিকে এসব খবর ছড়িয়ে পড়লে এই অশুভ চক্রের বিরুদ্ধে তৃলমূলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকগণ বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে, বিরাজ করছে বিস্ফোরণমূখ পরিস্থিতি। তৃণমূল এতোটাই বিক্ষুব্ধ যে কোনো সময় তারা এসব গণমাধ্যম কর্মী ও অশুভ চক্রের ওপর চাড়াও হয়ে গণধাওয়া বা গণপিটুনি দিতে পারে বলে গুঞ্জন বইছে।
জানা গেছে, এমপি ফারুক চৌধূরীর মামা জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এএইচএম কামরুজ্জামান হেনা, তার বাবা শহীদ আজিজুল হক চৌধূরীও দেশের জন্য জীবন উৎস্বর্গ করে গেছেন। পারিবারিক ভাবেই তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শ বুকে ধারণ করে বড় হয়েছেন। অথচ তিনি নাকি আওয়ামী লীগের চেতনাবিরোধী তাহলে যারা এসব অপপ্রচার করছে দেশের জন্য তাদের কি এমন পারিবারিক ঐতিহ্য রয়েছে আসলে রাজনীতিতে তারা কোনো ভাবেই এমপি ফারুক চৌধূরীকে ঠেকাতে না পেরে মানষিকভাবে হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে আর এই হতাশা থেকেই তাদের হতাশাজনক মন্তব্য। এছাড়াও বিশ্বের দ্বিতীয় সৎ ও সেরা রাজনীতিবিদ বঙ্গবন্ধু কন্যা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের একক ক্ষমতা বলে দলের সব প্রটৌকল ভেঙ্গে এমপি ফারুক চৌধূরীকে আওয়ামী যোগদান করিয়েছেন, তিন বার এমপি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দিয়েছেন, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি করেছেন, একবার শিল্প প্রতিমন্ত্রী করেছেন তাহলে দলের সভাপতি যেই মানুষটিকে এতোভাবে সম্মানিত করেছেন। সেই মানুষটির বিরুদ্ধে যারা এসব অপপ্রচার করছে তারা নিজেরা কি ? আওয়ামী লীগ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী এসব প্রশ্ন এই জনপদের সাধারণ মানুষের।