বঙ্গবন্ধুর আদর্শই আমাদের আদর্শ—আরেফিন সিদ্দিক

7 views

বার্তাবিডিডেস্ক নিউজ:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শই আমাদের আদর্শ। বঙ্গবন্ধুর আদর্শই শিক্ষকদের আদর্শ, বঙ্গবন্ধুর আদর্শই আপামর মেহনতী মানুষের আদর্শ।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে নারীর অধিকার ও ক্ষমতায়ন বিষয়ক এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, এই বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে পাঠ্যপুস্তুকের সঙ্গে শিক্ষা দিতে হবে। এই আদর্শ যুগ যুগ টিকিয়ে রাখার জন্য ভবিষৎ প্রজন্মকে এমনভাবে গড়তে হবে যাতে তারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্যুত না হয়।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন খুব সংক্ষিপ্ত ছিল। এই সংক্ষিপ্ত সময়ে তিনি বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন এবং তা বাস্তবায়নের পথ বাতলে সেই সোনার স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিয়েছেন।

বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মোডেল তুলে ধরে তিনি বলেন, এখন মানসিক উন্নয়ন জরুরি। আর সেই জরুরি কাজটি করবেন আপনারা (শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে)।

নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দ্রুত এই বিচার শেষ করতে হবে। সুসমন্বিত উন্নয়ন ছাড়া দেশকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব নয়। তাই নারী-পুরুষ সমভাবে দেশের জন্য কাজ করলে দ্রুত এসডিজি অর্জন সম্ভব।

বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ মহিলা ইউনিট আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাবির সাবেক উপচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। সভায় কিশোরগঞ্জ আর এম আইডিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক গোলসান আরা বেগমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইন্সটিটিউটের সাবেক পরিচালক প্রফেসর ড. নাজমা শাহীন, ডেপুটি এটর্নি জেনারেল ড. বশীর উল্লাহ, অধ্যাপক উল্লাসিসী সরকার, অধ্যাপক সায়েরা বেগম শিউলী, সুরাইয়া বানু ডলি, অধ্যাপক আনোয়ারা খানম ডলি, হোসনে আরা সিদ্দিকী জুলি, আখতারি বেগম, আনজুমান আরা। সভায় প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক নুরজাহান মনি। মূল আলোচক ছিলেন বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল হক আলো।

সভাপতি গোলসান আরা বলেন, নারীদের বাদ দিয়ে কোনো উন্নয়ন সম্ভব নয়। ঘরে-বাইরে আমাদের ছেলেদের এমন শিক্ষা দিতে হবে যেন তারা রাস্তা-ঘাটে পথে-প্রান্তরে নারীদের সম্মান দেয়। তাদের বিপদ-আপদে, মা-বোন নিকত্মাতীয় ভেবে দ্রুত সারা দেয়। এগিয়ে আসে।

পরে ঢাবির পুষ্টি ও খাদ্য ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক নাজমা শাহীনকে আহ্বায়ক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।