নবজাতককে ফেলে পালাল হতভাগা মা

28 views

ডেস্ক নিউজ:মানসুরা নামে এক প্রসূতি ২১ মে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি হন। এ সময় সঙ্গে তার কয়েকজন স্বজনও ছিলেন। প্রসবজনিত জটিলতা হওয়ায় ওই দিনই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। জন্মের পর অসুস্থ থাকায় নবজাতককে হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। অপরদিকে মা গাইনি ওয়ার্ডে ছিলেন। কিন্তু রোববার খবর নিয়ে জানা যায় যে মানসুরা গাইনি ওয়ার্ডে নেই। এরপর তাকে খুঁজে না পাওয়ায় বিষয়টি জানাজানি হয়।

হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটের ইনচার্জ মাহফুজা বেগম বলেন, মানসুরা হাসপাতালে ভর্তির নথিতে তার গ্রামের বাড়ির ঠিকানা লিখেছিলেন বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার মীরগঞ্জ গ্রাম। তবে তার দেয়া ওই ঠিকানায় অনুসন্ধান করে এর অস্তিত্ব পায়নি হাসপাতালের সমাজসেবা অফিস। তবে রেজিস্ট্রারে ওই নারীর স্বামীর নাম উল্লেখ নেই। বাবার নাম লেখা আছে আহম্মেদ আলী। এতে ওই নারীর বয়স উল্লেখ করা হয়েছে ২১ বছর।

এ বিষয়ে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সমাজসেবা কর্মকর্তা দিলরুবা আক্তার সোমবার দুপুরে বলেন, হাসপাতালে ভর্তির কাগজপত্রে উল্লেখ করা ঠিকানা এবং মুঠোফোন নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করে কাউকে পাওয়া যায়নি। তাই শিশুটিকে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেলে সমাজসেবা অধিদপ্তর পরিচালিত বরিশালের আগৈলঝাড়ায় ছোটমণি নিবাসে পাঠানো হবে। তবে নবজাতকটি এখনো অসুস্থ। এ জন্য তাকে হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

হাসপাতালের পরিচালক মো. বাকির হোসেন বলেন, নবজাতকটি এখনো অসুস্থ। আমরা ওর যথাযথ চিকিৎসা দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। শিশুটি পুরোপুরি সুস্থ হওয়ার পর তার প্রকৃত অভিভাবকদের খুঁজে না পাওয়া গেলে আমরা সমাজসেবা অধিদফতরের কাছে হস্তান্তর করব।