চৌগাছায় যুবলীগ কর্মী বারিক হত্যার ঘটনায় আটক নেই: মামলা নিয়ে টানা হেচড়া

373

স্টাফ রির্পোটার,যশোর ॥ যশোরে চৌগাছায় যুবলীগ কর্মী আব্দুল বারিক(৩২) লোম হর্ষক হত্যার ঘটনায় এখনও কেউ আটক হয়নি। মামলা নিয়ে চলছে টানাহেচড়া। এ ঘটনার একদিন পরও নিহতের পরিবার সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা করেনি। এলাকায় এখনও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। স্থানীয়রা ধারনা করছেন এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আবারও প্রতিপক্ষরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্সে জড়িয়ে পড়তে পারে।

স্থানীয়রা ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়,রবিবার বেলা সাড়ে ৯ টায় উপজেলার ফুলসারা ইউনিয়নের সিট চারাবাড়ি গ্রামে জমিজমার বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আ: আজিজের ছেলে যুবলীগ কর্মী আ: বারিক নিহত হয়। এ সময় নিহতের সহোদর আনিচুর মারাত্বকভাবে আহত হয়। এ ঘটনায় এখনও কেউ আটক হয়নি। এ ঘটনার একদিন পরও সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা হয়নি।

স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে নিহত আব্দুল বারিকের পারিবারের সাথে তার চাচা জেহের আলীর সাথে পুকুর পাড়ের রাস্তা ও মাঠের জমি নিয়ে দ্বন্দ চলে আসছিল। এ ঘটনা নিয়ে থানায় পরস্পর বিরোধী বেশ কয়েকটি মামলা আছে। এ ঘটনার জের ধরেই প্রতিপক্ষরা সংঘর্সে জড়িয়ে পড়ে। রবিবার বেলা সাড়ে টায় আব্দুল বারিক ও আনিচুর তাদেও পুকুর মাছ ধরছিল।

এ সময় তাদের পিছন থেকে এসে নিহতের চাচা জেহের আলীর ছেলে ফুল মিয়া,রাজ্জাক,ইদ্রিস আলী ও সুজাত,জুল হোসেন,নান্নু,ঠান্ডুসহ বেশ কয়েকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে আ: বারিক ও আনিসুরকে কুপিয়ে মারাত্বকভাবে জখম করে। এ ঘটনা নিয়ে সংশ্লিষ্ট থানায় এখনও কোন মামলা হয়নি। মামলা নিয়ে চলছে টানাহেচড়া। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত কেউ আটক ও মামলা হয়নি।

নিহত আব্দুল বারিকের ভাই হযরত আলী ও লাল্টু,বাশার জানায়,বরিবার বিকালে তার লাশ ময়না তদন্ত শেষে রাতেই নিহতের গ্রামের বাড়ি সিট চারাবাড়ি নিজ কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। আহত আনিচুরের ঢাকায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে তার স্বাস্থ্যর কোন উন্নতি হয়নি বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

নিহতের পিতা আব্দুল আজিজ জানায়, একটু
সমস্যার কারনে এখনও থানায় মামলা করেনি। তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) উত্তম কুমার জানান, এ হত্যা কান্ডের ঘটনা নিয়ে এখনও কেউ মামলা করতে থানায় আসেনি। তবে আজ রাতে হতে পারে। তবে এই ঘটনার সাথে যেই জড়িত থাক কাওকে ছাড় দেয়া হবে না।

শেয়ার