তানোরে ডিপ অপারেটর রবিউলের দাপটে কৃষকরা অতিষ্ঠ

84

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীর তানোরের কাঁমারগা ইউপির কামারগাঁ ‘মৌজায় বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) একটি গভীর নলকুপ অপারেটরের অনিয়ম, দূর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, সেচ্ছারিতা ও দাপটে নিরহ কৃষকরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। সম্প্রতি অপারেটরের অপসারণ ও স্কীমভুক্ত কৃষকদের মতামতের ভিত্তিতে অপারেটর নিয়োগের দাবিতে কৃষকরা স্থানীয় সাংসদ ও বিএমডিএ তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলীর কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে।

দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও রহস্যজনক কারণে বিএমডিএ কর্তৃপক্ষ অভিযুক্ত অপারেটরের বিরুদ্ধে এখানো তেমন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় কৃষকরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। স্থানীয়রা জানান, অপারেটর ও যুবলীগ নেতা রবিউল ইসলাম আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতার নাম ভাঙিয়ে এসব অপকর্ম করায় সাধারণ মানুষের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ব্যাপক নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি হচ্ছে এর দায় নিবে কে ?

সংশ্লিষ্ট এলাকার কৃষকগণের অভিযোগ, তানোরের কাঁমারগা ইউপির কামারগাঁ মৌজায় ২০২ নম্বর দাগে অবস্থিত গভীর নলকুপের স্কীমভুক্ত কৃষকের মতামত উপেক্ষা করে আর্থিক সুবিধার বিনিময়ে যুবলীগ নেতা রবিউল ইসলামকে অপারেটর নিয়োগ করা হয়েছে। কৃষকরা জানান, মৌসুমে গভীর নলকুপের স্কীমে প্রায় তিনশ’ বিঘা জমি চষাবাদ করা হচ্ছে। এদিকে অপারেটর রবিউল আওয়ামী লীগের বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচির নামে বিভিন্ন সময়ে কৃষকের কাছে থেকে আনুঃপাতিক হারে (চাঁদা) টাকা আদায় করছে। তবে এসব টাকার কোনো হিসাব তিনি কৃষকদের দিচ্ছেন না বোরো মৌসুমে যারা হিসাব চেয়েছে তাদের জমিতে সেচ দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

আর প্রতি বিঘায় সের্চ ১৪০০ টাকা থেকে ১৬০০ টাকা করে আদায় করা হয়েছে। কৃষকরা প্রিপেইড কার্ড নিয়ে গেলেও তাদের কার্ডে সেচ দেয়া হচ্ছে না আবার সমিতির মাধ্যমে গভীর নলকুপ পরিচালনার দাবি করা হলে সেটাও তিনি মানছেন না নিজের খেয়াল-খুশিমত গভীর নলকুপ পরিচালনা ও সেচ চার্জ আদায় করছেন। এছাড়াও ট্রান্সফরমার বিকল, নৈশপ্রহরী, লাইনম্যান নিয়োগ ইত্যাদি নানা অহুহাতে কৃষকদের জিম্মি করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন অপারেটর রবিউল। অপারেটর রবিউলের নানামূখী অনিয়ম-দূর্নীতি ক্ষমতার অপব্যবহার ও সেচ্ছাচারিতায় কৃষকরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে অপারেটর রবিউল ইসলাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এলাকার কিছু লোক তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছে। এব্যাপারে বিএমডিএ তানোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম বলেন, তিনি এখানো লিখিত অভিযোগ পাননি, তবে কামারগাঁ মৌজার ওই গভীর নলকুপ অপারেটর বিরুদ্ধে মুঠোফোনে একাধিক কৃষক অভিযোগ করেছে। তিনি বলেন, আগামি মৌসুমে অপারেটর পরিবর্তন করে কৃষকের মতামতের ভিত্তিত্বে অপারেটর নিয়োগ ও সমিতির মাধ্যমে গভীর নরকুপটি পরিচালনা করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বিষয়টি ইতমধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে।