নওগাঁয়  ভুল চিকিৎসায় নারীর মৃত্যু, ডাক্তার পলাতক

42

 

মামুন পারভেজ হিরা, নওগাঁ : নওগাঁয় এক বেসরকারি ক্লিনিকে ডাক্তারের ভূল চিকিৎসায় ১ নারীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। ঘটনাটি ঘটছে নওগাঁ সদর হাসপাতাল রোডে শাহ্ নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ক্লিনিকে। সরেজমিনে গিয়ে ও স্থানীয়রা জানায়, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সুফিয়া বেগম (৬০) নামের এক নারীকে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ কাজী ওহিদুল ইসলাম রোগী দেখার পর রোগীর লোকজনকে জানায় রোগীর জরুরী রক্তের প্রয়োজন। চিকিৎসকের কথা মত রোগীর লোকজন বিকাল ৫টার দিকে ওই ক্লিনিক থেকে রক্ত সংগ্রহ করে ডাক্তারকে দিলে ওই রক্ত রোগীর শরীরে দেয়া মাত্র ১০ মিনিট পর রোগী মারা যায়।

মৃত সুফিয়া বেগম জেলার মহাদেবপুর উপজেলার হরিপুর গ্রামের মৃত হামিদ সরদারের স্ত্রী। এ ঘটনায় জানাজানি হলে ক্লিনিকের মালিক মোঃ নূরুল ইসলাম রোগীর লোকজনের সঙ্গে মিমাংসা হয়। পরে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসলে ক্লিনিকের মালিক তড়িঘড়ি করে মাইক্রো ভাড়া করে লাশ পাঠিয়ে দেয়। রোগীর জামাই আব্দুর রহিম বলেন, চিকিৎসা করতে এসে শ্বাশুড়ির লাশ দেখতে হলো। রোগীর সঙ্গে আসা আত্মীয়া তসলিমা বলেন, রোগী সুস্থ্য ছিল কিন্তু ডাক্তার ভূল চিকিৎসা দিয়ে মেরে ফেলেছে। ধারনা করা হচ্ছে রোগীর শরীরে ব্লড মাসিং না হওয়ার কারনে রোগীর মৃত্যু হয়েছে। ডাঃ কাজী ওহিদুল ইসলাম রোগী মারা যাওয়ার সাথে সাথে ক্লিনিক থেকে পলায়ন করেন।

ক্লিনিকের ও‘টি ও বিভিন্ন দিকের ব্যবস্থপনা দেখলে মনে হয় এটি একটি বাড়ি যার নেই কোন ডাক্তার নেই কোন প্রয়োজনীয় জনবল। এ বিষয়ে নওগাঁর সির্ভিল সার্জন ডাঃ মমিনুল হকের সঙ্গে সেল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় নওগাঁর জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন অর রশীদকে জানালে তিনি বলেন, বিষয়টি সিভিল সার্জনের দেখার কথা তথাপি আমি তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার জন্য বলছি। নওগাঁ সদর মডেল থানার এস.আই রবিউল বলেন, মৃত্যের পক্ষ থেকে কেউ অভিযোগ করলে আইননুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। উল্লেখ্য গত কয়েক দিন আগেও শহরের পার-নওগাঁয় বেসরকারি ‘নওগাঁ ডায়াবেটিক সমিতি’ হাসপাতালে ভূল সিজারিয়ান অপারেশনে রাজিয়া সুলতানা (২৭) নামে এক প্রসূতি অপারেশন টেবিলেই মারা যায়।

শেয়ার