বিএমডিএর ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের খুঁটির জোর !

286

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি : রাজশাহীতে ‘বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুর রশিদের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতি, অবৈধ সম্পদ অর্জন, ক্ষমতার অপব্যবহার ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠেছে।

সূত্র জানায়, চাকরিবিধিমালার সব নিয়মনীতি লঙ্ঘন করে পাহাড়সম অভিযোগ মাথায় নিয়ে ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের পদে তিনি এখানো বহাল তবিওতে রয়েছেন এবং তার কারণে বিএমডিএর হাজারো কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে, উঠেছে সমালোচনার ঝড়। কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছে তাঁর খুঁটির জোর কোথায় সেটি নিয়ে।

বিএমডিএ তানোর জোনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যখন দূর্নীতির বিরুদ্ধে দেশব্যাপী শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন, ঠিক তখনই ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সব নিয়মনীতি লঙ্ঘন করে কি অদৃশ্যে শক্তির প্রভাবে অবৈধভাবে ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের পদ আঁকড়ে ধরে আছে তবে কি তিনি সব কিছুর উর্ধ্বে। তিনি আরো বলেন, তার ভাই মেকানিক সাইফুল হাসান তানোর বিএমডিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে মূর্তিমান আতঙ্ক হয়ে উঠেছে, তিনি তার ভাই ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের প্রভাব বিস্তার করে বিএমডিএ ভবনকে জিম্মি করে রেখেছেন কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছে না, এমনকি প্রতিবাদ করেও কোনো প্রতিকার মিলছে না উল্টো নানামূখী হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে, সম্প্রতি একজন কর্মকর্তা সাইফুল হাসানের অনিয়ম-দূর্নীতির প্রতিবাদ করায় তাকে রাতারাতি রংপুর পীরগঞ্জ বদলী করা হয়েছে।

রাজশাহী বিএনডিএর একটি সুত্র জানায়, বিগত ২০১৫ সালের ১৫ নভেম্বর নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের দায়িত্ব পান। আর দায়িত্ব পাবার পর পরই তিনি নানা অনিয়ম ও দূর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ে এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ব্যাপক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এদিকে চলতি বছরের ১৬ অক্টোবর পরিচালক পদে পদোন্নতি পায় শ্যাম কিশোর রায়।

এখানো তাকে দায়িত্ব বুঝে দেয়া হচ্ছে না। এমনকি তিনি দায়িত্ব বুঝে নিতে চাইলে তাকে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখানো হয়এমন আলোচনা কর্মকর্তা-বর্মচারীদের মধ্যে রয়েছে। ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুর রশিদ অদৃশ্যে ক্ষমতার প্রভাববিস্তার করে এখানো বহাল তবিওতে রয়েছে যেটা চাকরিবিধিমালার স্পস্ট লঙ্ঘন।

এদিকে ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুর রশিদকে নিয়ে বিএমডিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ দুই ভাবে বিভক্ত হয়ে পড়েছে বিরাজ করছে বিস্ফোরণমূখ পরিস্থিতি বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ বিষয়ে একাধিকবার যোগাযোগের চেস্টা করা হলেও বিএমডিএর ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুর রশিদ মুঠোফোনে কল গ্রহণ করেননি এমনকি তার মুঠোফোনে ম্যাসেজ দেয়া হলেও তিনি কোনো সাঁড়া না দেয়ায় তার কোনো বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এব্যাপারে বিএমডিএর সদ্য পদোন্নতি পাওয়া পরিচালক শ্যাম কিশোর রায় বলেন, তিনি ১৬ অক্টোবর পরিচালক পদে পদোন্নতি পেয়েছেন,

এখানো তাকে দায়িত্ব বুঝে দেয়া হচ্ছে না কেনো হচ্ছে না সেটা ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ভাল বলতে পারবেন, এবিষয়ে তিনি ভারপ্রাপ্ত পরিচালকের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দিয়ে মুঠোফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন।

শেয়ার