বিস্ময়কর উন্নয়ন করেছেন প্রধানমন্ত্রী : মেয়র লিটন

63

রাজশাহী ব্যুরো:
রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের অন্যতম কার্যনিবাহী সদস্য ও রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, বাংলাদেশে সর্বক্ষেত্রে বিস্ময়কর উন্নয়ন করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখে বিস্মিত বিশ্ববাসী।
আজ বুধবার রাত আটটায় রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
সভায় সভাপতির বক্তব্যে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ অবিচ্ছেদ্য অংশ। এখন বাংলাদেশ, আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে গেছে।
রাজশাহীতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচির ব্যাপারে মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ২৩জুন সকালে সূর্যদয়ের সাথে সাথে মহানগরের সকল আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। মহানগর আওয়ামী লীগে উদ্যোগে সকাল নয়টায় দলীয় কার্যালয়ের পাশে স্বাধীনতা চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হবে। এরপর দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে দোয়া মাহফিল। দোয়া মাহফিল শেষে ৭০ পাউন্ডের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হবে। বিকেল চারটায় মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে থেকে বের করা হবে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রাটি লালনশাহ পার্কে গিয়ে শেষ হবে। সন্ধ্যার পর সেখানে ৭০টি ফানুস উড়ানো ও আতশবাজি এবং সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। এছাড়া দিনটি উপলক্ষে বর্ণিল আলোকসজ্জা ও মাইকে মাইকে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচারিত হবে।
সভায় উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহফুজুল আলম লোটন, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, নাইমুল হুদা রানা, আসাদুজ্জামান আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. আসলাম সরকার, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ কবির সেন্টু, উপ-প্রচার সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহম্মেদ লিমন, মহানগর যুবলীগের সভাপতি রমজান আলী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল মোমিন, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজিব, জাতীয় শ্রমিক লীগের মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সোহেলসহ মহানগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।