মুশফিক ব্যাট বিক্রি করলেন ১৭ লাখ টাকায়

0

ক্রীড়া ডেস্ক: মুশফিকুর রহিমের ব্যাট নিলাম। বাংলাদেশ ক্রিকেটের বড় একটি ইতিহাসের স্বাক্ষী এ ব্যাট এখন শোভা পাবে শহিদ আফ্রিদির ঘরে!

মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাট নিলামে ২০ হাজার ডলারে কিনেছেন সাবেক পাকিস্তানি অলরাউন্ডার। বাংলাদেশি মুদ্রায় অঙ্কটি ১৭ লাখ টাকা ।

২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গলে এ ব্যাট দিয়ে ২০০ রানের ইনিংস খেলেছিলেন মুশফিক, টেস্ট ক্রিকেটে যা ছিল বাংলাদেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি।

করোনাভাইরাস দুর্গতদের সহায়তায় নিজের প্রিয় সেই ব্যাট নিলামে বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। অনলাইন নিলাম শেষ হয় বৃহস্পতিবার।

গত শনিবার শুরু হওয়া অনলাইন নিলাম ভুয়া বিডারদের চাপে বার দুয়েক বন্ধ হয়েছিল।

আফ্রিদি প্রচুর ত্রাণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন পাকিস্তানের নানা প্রান্তে। এ ব্যাটও কিনেছেন তার ফাউন্ডেশনের মাধ্যমেই।

মুশফিক জানালেন, যত দ্রুত সম্ভব এই অর্থ দুর্গত মানুষের সহায়তায় কাজে লাগানো হবে।

“আমি অনেক আগে থেকেই আফ্রিদির অনেক বড় ফ্যান। বিপিএলে এক দলে খেলেছি, বিপক্ষে দলে তো খেলেছিই। তার সঙ্গে আমাদের ভালো স্মৃতি আছে অনেক। পিএসএলে খেলার সময়ও কথা হয়েছে। ভালো বোঝাপড়া আছে।

তার ফাউন্ডেশন অনেক দিন থেকে কাজ করছে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতেও পাকিস্তানসহ নানা জায়গায় সহায়তা কার্যক্রম উনার মতো চালিয়ে আসছেন। এত বড় ব্যক্তিত্ব এই সহায়তা করেছেন, তাতে আমি সম্মানিত।”

“যত টাকাই হয়েছে, বিভিন্ন সোর্সের মাধ্যমে যত দ্রুত সম্ভব পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব যেন মানুষের জন্য কাজে লাগানো যায়। আমরা আমাদের মতো চেষ্টা করছি। আশা করি, সামর্থ্যবান সবাই মানুষের পাশে দাঁড়াবেন।”

যাদের ভুয়া বিডের কারণে নিলাম স্থগিত হয়ে গিয়েছিল, তাদের নিয়ে আক্ষেপ শোনা গেল মুশফিকের কণ্ঠে।

“এমন একটা মহৎ কাজে যারা ভুয়া বিড করেছেন, আমি তাদের ধিক্কার জানাতে চাই। আপনারা শুধু আমার নামকে ছোট করেননি, বাংলাদেশের ক্রিকেটকে ছোট করেছেন, দেশকে ছোট করেছেন।”

আফ্রিদির সঙ্গে এ ব্যাটের নিলামে মধ্যস্থতা ও সহায়তা করার জন্য মুশফিক বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সতীর্থ ও প্রিয় বন্ধু তামিম ইকবালকে।

নিলামে উঠেছিল গত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে বাংলাদেশ অধিনায়ক আকবার আলির ব্যবহার করা ব্যাট ও গ্লাভস। ২ হাজার ডলারে স্মারক দুটি কিনে নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি রিয়াজুল ইসলাম জুয়েল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here