স্টাফ রিপোর্টার (যশোর) ॥ যশোরের চৌগাছা থানা পুলিশ
বাদি হয়ে আবারও কথিত নাশকতা মামলা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

সোমবার দিবাগত রাতে থানার দুই দারোগা বাদি দুটি মামলা দুটি করেন।

ওই রাতেই পুলিশ ১০ বিএনপি নেতাকর্মীকে আটক
করেছেন।

আটকৃকতদের মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মিথ্যা বানোয়াট মনগড়া মামলা প্রত্যহারসহ আটকৃতদের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, চৌগাছা থানার এসআই শামীম হোসাইন মঙ্গলবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন চৌগাছায় নাশকতার জন্য বিএনপি জামা য়াতের নেতাকর্মীরা উপজেলার পাতিবিলা হাইস্কুল মাঠের পাশে পাকা রাস্তায় জড়ো হচ্ছে।

এসময় সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে বিএন পির ৫ বিএনপি নেতাকর্মীদের আটক করার পাশাপাশি ঘট নাস্থল হতে লাল রঙের টেপ মোড়ানো একটি অবিস্ফো রিত ককটেল সাদুশ্য হাত বোমা,কাঠের বাটাম ৩টি, লোহার রড ২টি এবং ছোটবড় ৮ টুকরা ইট জব্দ করেন।

একই সময়ে থানার অপর এসআই মধুসুধন বিশ্বাস অনুরুপ ভাবে জানতে পারেন চৌগাছা মহেশপুর সড়কে টেংগুরপুর মোড়ে আল্লাহরদান মার্কেটের সামনে বিএনপি জামাতের নেতাকর্মীরা নাশকতার জন্য জড়ো হয়েছেন।

তিনি সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে একটি ককটেল সাদৃশ্য হাতবোমা, কাঠের বাটাম ৫টি, লোহার রড ৪টি এবং ইট উদ্ধার করেন। সেখান থেকেও ৫ বিএনপি কর্মী কে পুলিশ আটক করেন।

উভয় স্থান হতে আটকৃতরা হলেন, হাকিমপুর ইউনিয়নের তজবিজপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মামুন, বড় নিয়ামতপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেন, দক্ষিন কয়ারপাড়া গ্রামের হাসা নুর রহমান,স্বরুপপুর গ্রামের জহির হোসেন, একই গ্রামের মোঃ হামিদ,স্বরুপদাহ গ্রামের রফিকুল ইসলাম, একই গ্রামের সনটু মিয়া,খড়িঞ্চা নওদা পাড়া গ্রামের আব্দুল ওহাব ঝন্টু, একই গ্রামের শফিউদ্দিন ও বহিলাপোতা গ্রামের শফিকুল ইসলাম।

আটককৃতদের মঙ্গলবকার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

দুটি মামলায় এজাহারভুক্ত আসামীর সংখ্যা হচ্ছে ৩২ জন এবং অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে সাড়ে ৩শ।

মামলার অন্যা ন্য আসামীরা হলেন,হাকিমপুর গ্রামের মনি  রুজ্জামান বাবু, স্বরুপপুর গ্রামের আলমখাঁ, তাহেরপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম, পাতিবিলা গ্রাামের আলম হোসেন, পাতিবিলা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী কবির হোসেন, পুড়াহুদা গ্রামের মাওঃ আব্দুল লতিফ, আরজি সুলতানপুর গ্রামের নেওয়াজ, স্বরুপদাহ গ্রামের শামছুল, দেবলয় গ্রামের আব্দুর রশিদ, চুটারহুদা গ্রা মের মোঃ হাসান, খড়িঞ্চা গ্রামের আহাদ আলী, বড়খানপু র গ্রামের তৈয়ব আলী একই গ্রামের শফিউদ্দিন, ভগমানপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেন, চাঁদপাড়া গ্রামের মোঃ তবি, একই গ্রামের রবিউল ইসলাম, কাদবিলা গ্রামের সালাম,চৌগাছার বিশ্বাসপাড়ার মোঃ হিরা, চৌগাছার মাঠপাড়ার রফিউদ্দিন, চৌগাছার পুরাতন থানাপাড়া মহল্লার মহিদুল ইসলাম এবং
ইছাপুর গ্রামের মোঃ রাজিব হোসেন।

এদিকে এক রাতে দুই দুইট কথিত নাশকতা মামলা এবং আটকের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন চৌগা ছা উপজেলা ও পৌর বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, পুলিশ রাতভর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে নিরিহ বিএনপির কর্মীদেরকে আটক করে এবং থানায় নিয়ে কথিত নাশকতা মামলা দায়ে র করেন। মামলা দিয়ে দাবি আদায়ের কন্ঠ স্তব্ধ করা যাবে না।

অবিলম্বে আটককৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবি করেন নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *