এমপির দৃষ্টি কামনা– চৌগাছার সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক ভবনটির বেহাল দশা

1

চৌগাছা(যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছা উপজেলার বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক ভবনটির বেহাল দশা। দীর্ঘদিন ধরে অর্থের অভাবে ভবন সংস্কারের কাজ বন্ধ হয়ে পড়ে আছে। এরফলে এ ভবনটির ভিতরে ও বাহিরে ময়লা ও আবর্জনায় অস্বাস্থ্যকর একটি পরিত্যক্ত ভবনে পরিনত হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ড. এম মোস্তানিছুর রহমান ও সংসদ সদস্য সাবেক মেজর জেনারেল ডা: মো: নাছির উদ্দিনের সৃদৃুষ্টি কামনা করেছেন উপজেলার সরকারী প্রাথমিকের শিক্ষকেরা।

জানাযায়,২০১০ সালে পৌর শহরের চৌগাছা-মহেশপুর সড়ক সংলগ্ন কংশারীপুর প্রাথমিক বিদ্যালমের পূর্ব-উত্তরের দিকে ১১শতক জমির উপরে প্রতিষ্টিত হয়। এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম হাবিবুর রহমান ও উপজেলার সাবেক সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও কংশারী পুর সরকারী প্রাথমিক ব্যিালয়ের প্রধান শিক্ষক (অব:)আলহাজ এস এম আতিয়ার রহমান ভবনটি স্থাপনে পৃষ্টপোষকতা করেন।

এ সময় শিক্ষকদের অর্থায়নে এই ভবন নিমার্নের কাজ শুরু করা হয়। ওই সময় প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ লাখ টাকা ব্যয় হয় বলে নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্র জানিয়েছেন।

এরপর থেকে দীর্ঘনি ধরে অর্থের অভাবসহ শিক্ষকদের আন্তরিকতা নানা থাকা ও গ্রæপিংসহ নানা জটিলতার কারনে দীর্ঘদিন ধরে এই ভবনের অসমাপ্ত কাজ হয়নি। এরফলে এ ভবনটির ভিতরে ও বাহিরে ময়লা ও আবর্জনায় একটি পরিত্যক্ত ভবনে পরিনত হয়েছে।

সম্প্রতিকালে উপজেলার প্রধান শিক্ষক সমিতির আহবায়ক ওসমান গনি ও সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিন তাদের এক সভায় ওই ভবনের বেহাল দশার কথা তুলে ধরেন। এ সময় প্রধান শিক্ষকরা জরুরীভাবে ৭০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। যে টাকার গত ২৬ শে জুন থেকে শুধুমাত্র বাহিরের রংয়ের কিছু কাজ করা হয়। বাকী সব কাজ পড়ে আছে।

এ বিষয়ে উপজেলার প্রধান শিক্ষক নাছির উদ্দিন, কবি শাহিন শাহাবুব,আব্দুর রশিদ,সামাউল ইসলাম,শাহিরুর রহমান শাহিন সহ বেশকয়েকজন প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা হয়।

তারা জানায়, শুরু থেকেই সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা এস এম হাবিবুর রহমান ও তার বড় ভাই সাবেক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আলহাজ এস আতিয়ার রহমান এই ভবন নিমার্নের ঐকান্তিকভাবে চেষ্টা করেন। তাদের প্রচেষ্টায় শিক্ষকরাও এগিয়ে আসেন।

শুরুতেই প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ লাখ টাকা ব্যয় হয় এই ভবনে। এরপর বেশকিছুদিন ধরে অর্থের অভাবে ভবনের অসমাপ্ত কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ভবনের ভিতরে সভা সমাবেশ করা যাচ্ছে না।

বর্তমানে অর্থের অভাবেই ওই ভবনের গেট,অভ্যার্থনা কক্ষ,ভবনের টাইলস, রং, টইলেট,আসবাপত্র ইত্যাদিসহ প্রয়োনীয় কাজ পড়ে আছে। সব মিলায়ে ওই ভবন নির্মানের সব কাজ শেষ হতে এখনও ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা প্রয়োজন।

এ অবস্থায় এ ভরনের উন্নয়নে সরকারী এক কালীন বিশেষ অনুদানের জন্য বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ড. এম মোস্তানিছুর রহমান ও সংসদ সদস্য সাবেক মেজর জেনারেল ডা: মো: নাছির উদ্দিনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন প্রাথমিকের শিক্ষকেরা।

1 COMMENT

  1. যশোরের চৌগাছা উপজেলার বাংলাদেশ বেসরকারী প্রাথমিক শিক্ষক ভবনটির বেহাল দশা। দীর্ঘদিন ধরে অর্থের অভাবে ভবন সংস্কারের কাজ বন্ধ হয়ে পড়ে আছে। এরফলে এ ভবনটির ভিতরে ও বাহিরে ময়লা ও আবর্জনায় অস্বাস্থ্যকর একটি পরিত্যক্ত ভবনে পরিনত হয়েছে।

    এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ড. এম মোস্তানিছুর রহমান ও সংসদ সদস্য সাবেক মেজর জেনারেল ডা: মো: নাছির উদ্দিনের সৃদৃুষ্টি কামনা করেছেন উপজেলার সরকারী প্রাথমিকের শিক্ষকেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here