ঠাকুরগাঁওয়ে বছরের সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত 

0

 রহমত আরিফ, ঠাকুরগাঁও  প্রতিনিধিঃ

জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩১ জনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন ১ জন। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় করোনা শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৩০ শতাংশ। এটি এ বছর এক দিনে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত।

শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলায় ১২ জন, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় ৬, রানীশংকৈল উপজেলায় ৭, পীরগঞ্জ উপজেলায় ৩ এবং হরিপুর উপজেলায় ২ জন আছেন। ঠাকুরগাঁও জেলায় এর আগের ২৪ ঘণ্টায় ২২ জনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল। নমুনা পরীক্ষার অনুপাতে শনাক্তের হার ছিল ২৫ শতাংশ। ঠাকুরগাঁও জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, গত বছরের ১১ এপ্রিল ঠাকুরগাঁও জেলায় করোনায় সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হন। এ পর্যন্ত ১০ হাজার ২০০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

 

এসব নমুনা পরীক্ষা করে ১ হাজার ৮১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৪০ জন। আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুর হার ২ দশমিক ২০ শতাংশ। জুন মাসে ঠাকুরগাঁও জেলায় হঠাৎ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু ও শনাক্ত দুটিই বেড়ে যায়। মাসের ৮ দিনে ঠাকুরগাঁও জেলায় ১২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ মাসের ৭ দিনে ৪৫৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নমুনার তুলনায় করোনা শনাক্তের হার ২৭ দশমিক ৫৯ শতাংশ। ঠাকুরগাঁও জেলা সিভিল সার্জন মাহফুজার রহমান সরকার বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি আমাদের ভাবনায় ফেলেছে। প্রতিদিনই আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এ অবস্থায় মাস্ক ব্যবহার ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিকল্প নেই। যাঁরা স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করছেন, তাঁদের প্রতি কঠোর হতে করোনা প্রতিরোধ কমিটিতে সিদ্ধান্ত হয়েছে। পাশাপাশি আক্রান্ত ব্যক্তিদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রেখে চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’