অধ্যক্ষ মিজানকে ঘিরে অর্ধশত সেচযন্ত্র নিয়ে সমালোচনার ঝড়

0

আলিফ হোসেন,তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধি
রাজশাহীর তানোরের পাঁচন্দর ইউনিয়নের (ইউপি) কোয়েল আদর্শ কলেজ অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান মিজানকে নিয়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড় জনমনে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

স্থানীয়রা জানান, চারদলীয় জোট সরকারের সময়ে রাজশাহী জেলা বিএনপির সাবেক সম্পাদক প্রয়াত শীষ মোহাম্মদের ঘনিষ্ঠ সহচর এবং অর্থের যোগানদাতা হিসেবেও পরিচিত ছিলেন মিজান।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক নেতাকর্মী বলেন, মিজান এলাকায় ওয়াটার লর্ড (জল জমিদার) নামে পরিচিত। তারা বলেন, এলাকায় গভীর-অগভীর মিলে প্রায় অর্ধশত সেচযন্ত্র তার নিয়ন্ত্রণ রেখে ও সিন্ডিকেট করে সেচ নিয়ে রীতিমতো জল জমিদারি করছেন।

প্রতি বিঘায় সেচ চার্জ সাড়ে ৩ হাজার টাকা নির্ধারণ করে সেচ চার্জ আদায়ের নামে চাঁদাবাজি করা হচ্ছে। এছাড়াও এলাকায় সালিশ-দরবার বাণিজ্য, কেউ তার বিরুদ্ধে কোনো কথা বললেই তাকে ধরে নিয়ে এসে নির্যাতন এমনকি তার চাহিদামতো সেচচার্জ দিতে ব্যর্থ হলে ফসল কেটে নেয়া ইত্যাদি অভিযোগের প্রচার রয়েছে। তৃণমুলের অভিযোগ অধ্যক্ষ মিজান কখানোই আওয়ামী লীগে সক্রিয় ছিলেন না, নেতাকর্মীদের সঙ্গে তেমন কোনো সম্পর্কও গড়ে উঠেনি। এসব নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে তার ব্যাপক ইমেজ সঙ্কট রয়েছে।

অথচ কোনো পুর্ব ঘোষণা ছাড়াই নির্বাচনের আগে তিনি হঠাৎ করেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বলে মোটরসাইকেল শো-ডাউন করে তৃণমুলে বিভাজন সৃস্টির অপতৎপরতা শুরু করেছে। তিনি দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী তবে দলের ইউনিয়ন কমিটির কোনো দায়িত্বশীল নেতা ও কর্মী-সমর্থক তার সঙ্গে নাই, তাহলে তিনি কিভাবে আওয়ামী লীগের মনোয়ন প্রত্যাশা করতে পারেন।
স্থানীয়রা জানান, পাঁচন্দর ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিনের সঙ্গে অধ্যক্ষ মিজানের বিরোধ রয়েছে। এদিকে সেই বিরোধের সুত্রধরে নির্বাচনে আগ মুহুর্তে মিজান প্রার্থী হবার ঘোষণা দিয়ে একঢিলে দুই পাখি শিকার করতে চাইছে। অধ্যক্ষ মিজান প্রার্থী হবার ঘোষণা দিয়ে একদিকে মতিনকে চাপে ফেলে বশে আনা অন্যদিকে

তার ছোট ভাই জামিলুর রহমানকে তানোর মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ করা এই কৌশল নিয়ে তা বাস্তবায়নের জন্যই তিনি হঠাৎ করে প্রার্থী হবার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি জানেন আওয়ামী লীগের দলীয় সমর্থন পাবেন না, নির্বাচনে বিজয়ী হবার মতো জনসমর্থনও তার নাই।

এবিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান মিজান এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি নেতাকর্মীদের নিয়ে মাঠে আছেন দল চাইলে ভোট করবেন না চাইলে না, তবে তার অন্যকোন উদ্দেশ্যে নাই, তার প্রতিপক্ষকরা তার বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার করছে।

এব্যাপারে ইউপি আওয়ামী লীগের এক জৈষ্ঠ নেতা বলেন, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান মিজান কখানোই আওয়ামী লীগ করেনি তাকে মনোনয়ন দেয়ার প্রশ্নই আসে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here