মহেশপুরে স্ত্রীকে কু-প্রস্তাব: স্বামীর থানায় জিডি

0
474

” শহিদুল ইসলাম মহেশপুর থেকে ”

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সিমান্তবর্তি শ্যামকুড় ইউনিয়নের পদ্মপুকুর গ্রামের দুর্জয় (২০) নামের এক কলেজ ছাত্র একই গ্রামের দিন মজুর আজিজুর রহমানের স্ত্রী মোমতাজ বেগম (২০) নামের এক গৃহবধুকে মোবাইলে ফোনে কু-প্রস্তাব দেওয়ার তথ্য ফাঁস হওয়ায় ফুসে উঠেছে তার স্বামী। এঘটনায় স্বামী আজিজুর রহমান বাদী হয়ে ৬ আগষ্ট ঐ ছাত্রের বিরুদ্ধে মহেশপুর থানায় একটি ডায়রী করেছে।

জানা গেছে আজিজুর রহমান সংসার চালাতে কাজের জন্য তার স্ত্রী ও কন্যাকে উপজেলার শ্যামকুড় ইউপির পদ্মপুকুর গ্রামের বাড়িতে রেখে ঢাকা শহরে কাজ করছে । আর সুজগে একই গ্রামের কলেজ পড়ুয়া দলিয়ার রহমানের এক মাত্র পুত্র দুর্জয় বেশ কিছুদিন ধরে তার স্ত্রীকে মোবাইল ফোনে বিভিন্ন সময় ফোন আলাপ করে দৈহিক মেলা মেশার আঘ্র প্রকাশ করে একের পর এক কু-প্রস্তাব দেওয়া সহ বিভিন্ন প্রলোভন দিয়ে আসছিল। বিষয়টি স্ত্রী মোমতাজ তার স্বামী আজিজুরকে জানালে দুর্জয় নামের ঐ কলেজ ছাত্র আরো বেপরোয়া হয়ে গত ৩০ জুলাই ভোর রাত্রে দুর্জয়ের ব্যবহিত ০১৯৬৫৮৪৬০৬৮ মোবাইল নম্বর থেকে মোমতাজের ০১৯৮৮২১৪১৯০ নম্বরে ফোন করে একের পর এক দৈহিক মেলা মেশা করার জন্য কু-প্রস্তাব দেয়। এব্যাপারে স্ত্রী মোমতাজ তার স্বামী আজিজুরকে পুনরায় জানালে ঐ কলেজ ছাত্র দুর্জয় আবারো তার স্ত্রীকে হত্যার হুকমী দেয়। যা তাদের মোবাইলে রেকর্ড করে সংরক্ষন রয়েছে। স্ত্রী ও কন্যা সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ৬ আগষ্ট স্বামী আজিজুর বাদী হয়ে দুর্জয়কে আসামী করে মহেশপুর থানায় একটি ডায়রী করেছে। যার নং- ২৭৪ । এব্যাপারে ঐ কলেজ ছাত্রের কাছে জানতে চাইলে তিনি তার মায়ের সামনে অশিকার করে বলেন আমি দুসম্পর্কের দেবর হিসাবে মোবাইল ফোনে একটু রস মারামারী করেছি তবে কোন হত্যার হুমকী দেওয়া হয়নি। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় নানা ধরনের গুঞ্জন চলছে। এ ব্যাপারে পুলিশ দুর্জয়ের ব্যবহিত মোবাইল কলরিষ্ট যাচাই করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে জানিয়েছেন।