যশোরে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ট্রায়াথলন প্রতিযোগিতা

0
248

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আগামীকাল যশোরে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দ্বিতীয় জাতীয় ট্রায়াথলন ও প্রথম জাতীয় জুনিয়র ট্রায়াথলন প্রতিযোগিতা। বাংলাদেশ ট্রায়াথলন অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ও যশোর ট্রায়াথলন অ্যাসোসিয়েশনের ব্যবস্থাপনা এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম-হানিফ।
ওয়েস্টার্ণ ইঞ্জিনিয়ারিং পৃষ্ঠপোষকতায় উপশহর পার্কের লেকে সাঁতারের মধ্যে দিয়ে এই জাতীয় প্রতিযোগিতা শুরু হবে। প্রতিযোগিতায় স্বাগতিক যশোরের একোয়েটিক ক্লাব, ডলফিন সুইমং ক্লাব, সৃষ্টি সুইমিং ক্লাব, যশোর সুইমং ক্লাব, যশোর ট্রায়াথলন, এম আর এস আর সংস্থা ও যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থাসহ খেলায় অংশগ্রহণ করবে বাংলাদেশ আনসার, আনসার ও ভিডিপি ক্লাব, নড়াইল জেলা ক্রীড়া সংস্থা, ড্যাফোডিল ক্লাব, রাজশাহী আলমগীর সুইমিং ক্লাব, রাজশাহী জেলা সংস্থা, কুষ্টিয়া লালন শাহ সুইমিং ক্লাব, কুষ্টিয়া আমলা সুইমিং ক্লাব, কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থা, কুষ্টিয়া গড়াই সুইমিং ক্লাব, কিশোরগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সাগরখালী সুইমিং ক্লাব, মেহেরপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থা, বাগেরহাট জেলা ক্রীড়া সংস্থা, চুয়াডাঙ্গা জেলা ক্রীড়া সংস্থা, দিনাজপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থা, বগুড়া জেলা ক্রীড়া সংস্থা, ঝিনাইদাহ জেলা ক্রীড়া সংস্থা, মাগুরা জেলা ক্রীড়া সংস্থা, চুয়াডাঙ্গা সিমান্ত সুইমিং ক্লাব, পূর্বাচল সুইমিং ক্লাব, কুষ্টিয়া জেলা ট্রায়াথন ক্লাব, সুন্দরবন সুইমিং ক্লাব, বোটিয়াঘাটা সুইমিং ক্লাব, পটুয়াখালী সুইমিং ক্লাব, চাপাইনবাবগঞ্জ জেলা ট্রায়াথলন ক্লাব, বরগুনা জেলা ক্রীড়া সংস্থা, আমলা ক্রীড়া উন্নয়ন সংসদ, জয়পুরহাট জেলা ক্রীড়া সংস্থা, যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও বিজয়নগর ট্রায়াথলন ক্লাবের শতাধিক খেলোয়াড় খেলবেন।
বৃহস্পতিবার উপশহর কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, ট্রায়াথলন অলিম্পিক এশিয়ান কমনওয়েলথ এবং সাউথ এশিয়ার অর্ন্তভুক্ত একটি আর্ন্তজাতিক খেলা। ২০১৩ সালে বাংলাদেশে প্রথমবারের মত প্রতিযোগিতায় মাত্র ৪৫ জন খেলোয়াড় ও সংগঠক অংশ নেয়। এবারের দুদিন ব্যাপি প্রতিযোগিতায় ৩৭টি প্রতিষ্ঠান থেকে শতাধিকের উপরে খেলোয়াড় অংশ নিচ্ছে। ট্রায়াথলনে অলিম্পিকের নিয়ম অনুসারে একজন প্রতিযোগিকে প্রথমে সাঁতার, এরপর সাইক্লিং শেষে দৌড়াতে হয়। সেই নিয়ম অনুসারে প্রতিযোগিতায় একজন প্রতিযোগিকে ৭৫০ মিটার সাঁতার, এরপর ২০ কিলোমিটার সাইক্লিং শেষে ১০ কিলোমিটার দৌড় অনুষ্ঠিত হবে। এই দিনে বিজয়ীদের হাতে পুরুস্কার দেয়া হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রায়াথলন অ্যাসোসিয়েশনের অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, যশোর জেলা ট্রায়াথলন অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান, উপদেষ্টা মকছেদ শফি ও সদস্য নুরুল আরিফিন প্রমুখ।