সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত

0
489

মুহা: জিললুর রহমান,সাতক্ষীরা
সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউপি চেয়ারম্যান কেএম মোশাররফ হোসেন মুখোশধারী সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে। তিনি এ সময় স্থানীয় যুবলীগ অফিসে বসেছিলেন। চেয়াম্যান মোশারফ হোসেন কৃষ্ণনগর গ্রামের মৃত সৈলুদ্দিন কাগুজির ছেলে।
কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) রাজিব হোসেন প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানান, চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন (৫২) স্থানীয় যুবলীগ অফিসে বসেছিলেন। এ সময় পাঁচ ছয় জন যুবক মোটর সাইকেলে এসেই বাজারে কয়েকটি ককটেল বোমা ফাটায়। এতে আতংকিত হয়ে দোকান পাট বন্ধ হবার সুযোগে সন্ত্রাসীরা যুবলীগ অফিসে ঢুকে চেয়ারম্যানের গালে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করে। এরপরও তারা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। কালিগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার মহসিন আলী তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
এলাকাবাসী জানায়, চেয়ারম্যান মোশাররফের সাথে একই ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ নেতা আব্দুল জলিলের সাথে দীর্ঘদিন দ্বন্দ্ব চলে আসছিল । বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ড ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসী জানান। এ ঘটনায় ৩জন কে গ্রেফতার করেছে বলে স্থানীয় চৌকিদার কওসার আলী বলেন। তবে পুলিশ গ্রেফতারের কথা অস্বীকার করেছে। রাতভর নিহতের বাড়ীর ও ইউনিয়ন কাউন্সিলের সামনে তার সমর্থকরা অবস্থান করে বিক্ষোভ করছে । এরিপোর্ট লেখার সময়ও বিক্ষোভ চলছিল।
কালিগঞ্জ সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) ইয়াসিন আলি জানান, চেয়ারম্যানের লাশ কালিগঞ্জ হাসপাতাল থেকে সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন হত্যার আলামত হিসাবে বেশ কয়েকটি গুলি সেখানে পাওয়া গেছে।
চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। তিনি কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের তিনবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান। হত্যার কারণ এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।