মহেশপুর জোরপূর্বক বিবাহের ঘটনায় এক ছাত্রী আত্ম হত্যা করলো

0
186

” শহিদুল ইসলাম মহেশপুর থেকে ”

পরিবারের পক্ষ থেকে জোর পুর্বক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করাকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার নেপা ইউপির কুল্লাহ দাখিল মাদ্রাসার নাছিমা খাতুন নামের ৯ম শ্রেনীতে পড়ুয়া এক ছাত্রী বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। নাছিমা খাতুন ইউপির খোশালপুর গ্রামের নাসির উদ্দীনের কন্যা।
এলাকাবাসী ও এলাকা সূত্রে জানাযায় দাদী মা ও পরিবারের লোকজন আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর নাছিমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে একই ইউপির পার্শবর্তি গ্রাম মাইলবাড়ীয়া গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে ইনামুল (২৫) এর সঙ্গে জোর পুর্বক বিবাহ দেওয়ার কথায় বাধ্য করার এক পর্যায়ে দাদীমার সাথে নাছিমার বাক বিতন্ডের এক পর্যায়ে ঝগড়া চলতে থাকে। এতে নাছিমা ২ রাত ২ দিন না খেয়ে জীবন যাপন করে। অবশেষে গত বিবাহ ঠেকাতে পারবে না ভেবে ১৬ই সেপ্টেম্বর বিকালে দাদীর উপর অভিমান করে নিজ বাড়িতে বিষপান করে। পরিবারের লোকজন তাকে দ্রত উদ্ধার করে নেপা মোড় একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত্যু বলে ঘোষনা করেন।
মৃত্যুর পূর্বে সে চিঠিতে লিখে যায় আমি কোন খারাপ মেয়ে না। আমি আমার দাদীর অকথ্য কথা সহ্য করতে না পেরে বিষপান করে মারা যাচ্ছি। আমার মৃত্যু জন্য আমার দাদী মা দায়ী। খবর পেয়ে ১৭ই সেপ্টেম্বর সকালে মহেশপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশের সুরোতহাল রিপোর্ট তৈরী করে পোষ্টমর্টেমের জন্য ঝিনাইদহ মর্গে প্রেনর করেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশ মর্গে ছিল।