ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর-কোটচাঁদপুর) আসনে গন সংযোগে ব্যস্ত আ’লীগ নেতা রেজাউল করিম টিটন

0
379

মহেশপুর অফিসঃ- ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর-কোটচাঁদপুর) আসনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সম্ভাব্য এমপি প্রার্থী হিসেবে গন সংযোগে ব্যস্ত কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ উপ-কমিটির সদস্য, উদীয়মান নেতা মো: রেজাউল করিম টিটন। টিটন ১৯৭৯ ইং সালে উপজেলার ১ নং এস বিকে ইউপির শাহাবাজপুর গ্রামের এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তার পিতা প্রয়াত ইছাহক সরদার ছিলেন এক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবীদ। টিটন সুন্দরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে ৫ম শ্রেণী, খালিশপুর বহুমূখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এস. এস সি, বোরহান উদ্দিন কলেজ, ঢাকা থেকে এইচ এস সি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয় থেকে কৃতিত্বের সাথে বি এস এস (সম্মান) ও এম এস এস ডিগ্রী অর্জন করেন। বোরহান উদ্দিন কলেজ থেকেই তিনি ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। তিনি ১৯৯৮ সাল থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সূর্যসেন হল শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন, পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ (দেলোয়ার-হিমু) কমিটির সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ (রিপন-রোটন,২০০৬-২০১১ সন পর্যন্ত) ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি আওয়ামীলীগ বন ও পরিবেশ উপ-কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্বে আছেন। ছাত্রলীগে থাকাবস্থায় দলের প্রয়োজনে জননেত্রী শেখ হাসিনার ডাকে সাড়া দিয়ে আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথে লড়াকু সৈনিক হিসেবে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি ২১ শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলার সময় স্বশরীরে উপস্থিত ছিলেন এবং আল্লাহর অশেষ রহমতে নেত্রীর সাথে তিনিও বেঁচে যান। জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন রেজাউল করিম টিটন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কে আরো শক্তিশালী করতে দীর্ঘদিন যাবত মহেশপুর- কোটচাঁদপুরের মানুষের পাশে থেকে দলকে সুসংগঠিত করতে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি এলাকার গরীব, দূঃখী মানুষদের কে আর্থিকভাবে সাহায্য সহযোগীতা করে থাকেন। এছাড়া মসজিদ, মাদ্রাসা ও এতিমখানার উন্নয়নে আর্থিক অনুদান দিয়ে থাকেন। তিনি মহেশপুর-কোটচাঁদপুরের বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামে গ্রামে যাচ্ছেন এবং জনগনের সুখ-দুঃখের খবরা-খবর নিচ্ছেন। গন-সংযোগ করাকালীন বিভিন্ন পথ সভায় তিনি বলেন, আমি আওয়ামীলীগের কর্মী হিসেবে কাজ করতে চাই, শেখ হাসিনার সরকার, উন্নয়নের সরকার, উন্নয়নের ধারাকে অব্যহত রাখতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমাকে যদি সংসদ সদস্য হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয় তবে আমি নৌকা প্রতীকে বিজয়ী হয়ে এলাকার রাস্তা-ঘাট, শিক্ষাখাতের উন্নয়ন, কৃষি খাতের উন্নয়ন, বিনামূল্যে এলাকার উচ্চ শিক্ষিত, অর্ধ-শিক্ষিত, বেকার যুবক-যবতীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব। এছাড়া মহেশপুর-কোটচাঁদপুরকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীমুক্ত এবং আধনিক শহর হিসেবে গড়ে তুলবো।