কোটা বাতিল করে পরিপত্র জারি

0
241

বার্তাবিডিডেস্ক নিউজ:

সরকারি চাকরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পদে কোটা বাতিল করে পরিপত্র জারি করেছে সরকার। আজ বৃহস্পতিবার এই পরিপত্র জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের সচিব ফয়েজ আহম্মদ সই করা ওই পরিপত্রে বলা হয়েছে, সরকার সকল সরকারি দপ্তর, স্বায়ত্তশাসিত/আধা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন করপোরেশনের চাকরিতে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ১৭/৩/১৯৯৭ তারিখের সম (বিধি-১) এস-৮/৯৫ (অংশ-২)-৫৬ (৫০০) নম্বর স্মারকে উল্লিখিত কোটা পদ্ধতি নিম্নরূপভাবে সংশোধন করল :

ক. ৯ম গ্রেড (পূর্বতন প্রথম শ্রেণি) এবং ১০ম-১৩তম গ্রেডের (পূর্বতন ২য় শ্রেণি) পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ প্রদান করা হবে এবং

খ. ৯ম গ্রেড (পূর্বতন ১ম শ্রেণি) এবং ১০ম-১৩তম গ্রেডের (পূর্বতন ২য় শ্রেণি) পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি বাতিল করা হলো।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, অবিলম্বে এটা কার্যকর হবে।

স্বাধীনতার পর সরকারি চাকরিতে নিয়োগে ৫৬ শতাংশ পদ বিভিন্ন কোটার জন্য সংরক্ষিত ছিল। এর মধ্যে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য ৩০ শতাংশ, নারীদের ১০ শতাংশ, জেলা ১০ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ৫ শতাংশ এবং প্রতিবন্ধী ১ শতাংশ।

কোটার বিদ্যমান পদ্ধতি সংস্কার করে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবিতে কয়েক মাস আগে আন্দোলন জোরালো করেছিল ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। প্রথমে তাদের দাবিতে সরকার সায় না দেওয়ার অবস্থানে থাকলেও কয়েক মাস পর কোটা পদ্ধতি পর্যালোচনায় মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে কমিটি গঠন করে।

ওই কমিটি প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে কোটা সম্পূর্ণ তুলে দেওয়ার সুপারিশ করে। ওই সুপারিশ গতকাল বুধবার মন্ত্রিসভা অনুমোদন দেয়।

এদিকে মন্ত্রিসভার ওই সিদ্ধান্তের পর এর প্রতিবাদে এবং মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে বুধবার রাতে ‘মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কমান্ড’ ও ‘মুক্তিযোদ্ধার পরিবার’ নামে দুইটি সংগঠন রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে।

গতকাল রাত সাড়ে ৮টার দিকে সংগঠনটির প্রায় ১০০ সদস্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বেরিয়ে শাহবাগে অবস্থান নেন। তারা সড়কে গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন। এতে দেখা দিয়েছে যানজট।