লোডশেডিং এ বিপর্যস্ত  চারঘাট

0
26
চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি
রাজশাহীর চারঘাটে ঘন ঘন লোডশেডিং এর কারনে চরম ভোগান্তী পোহাচ্ছে স্থানীয় সাধারন জনগন।
উপজেলার প্রায় অধিকাংশ এলাকায় দিনে ও রাতে মিলে নিয়মিত ৮-৯ ঘন্টা লোডশেডিং হচ্ছে।
ফলে তীব্র গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে। চরম ভোগান্তী পোহাচ্ছে শিশু, কিশোর, বৃদ্ধ ও শিক্ষার্থীসহ সাধারন জনগন।
নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ চারঘাট জোনাল অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভাকে বিদ্যুৎ বিতরনের জন্য মোট সাতটি ফেইজে ভাগ করে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে।
এর বাইরেও আরেকটি ফেইজ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির নিজস্ব কম্পাউন্ডে বসবাসরত স্টাফ ও অফিসের জন্য আলাদা ট্রান্সফরমার ব্যবহার করে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবহার করছেন।
ক্ষেত্র বিশেষে কয়েকটি ফেইজে সঠিক বিদ্যুৎ সরবরাহ করলেও অন্যান্য ফেইজে লোডশেডিং এ বৈষম্যের শিকার হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
নিমপাড়া ইউনিয়নের নন্দনগাছির অনিক বলেন ঘন ঘন লোডশেডিং এর কারনে শিশু সন্তান নিয়ে অনেক কষ্ট করতে হচ্ছে।
নিয়ম অনুযায়ী এক ঘন্টার লোডশেডিং এর কথা থাকলেও দিনে ও রাতে মিলে প্রতি ঘন্টা পর একঘন্টা থেকে দেড় ঘন্টা পর্যন্ত লোডশেডিং হচ্ছে।
এক দিকে ভ্যাপসা গরম এবং অন্যদিকে উপুর্যপুরি লোডশেডিং এ অসুস্থ হয়ে পড়ছে অনেকে। সারদা বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী আওয়াল বলেন বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী রাত ৮ টার সময় আমরা দোকান বন্ধ করি। কিন্তু সারারাত কয়েক দফা বিদ্যুৎ না থাকার ফলে সারারাত ঘুমাতে পারি না।
নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের নির্দেশনা থাকলেও লোডশেডিং এ অধিকাংশ সময় বিদ্যুৎ থাকে না । বিদ্যুৎ না থাকলে বিকল্প বিদ্যুতের পর্যাপ্ত উৎস্য নাই।
কয়েকটি আইপিএস থাকলেও অধিকাংশ আইপিএসই ব্যবহারের অনুপযোগী বা অকেজো হয়ে পড়ে আছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রের প:প: কর্মকর্তা ডা: আশিকুর রহমান বলেন অন্যান্য এলাকার মতো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে লোডশেডিং এর কারনে বিদ্যুৎ সরবরাহ মাঝে মধ্যে বন্ধ থাকে। লোডশেডিং হলে রোগীদের পাশাপাশি আমাদেরও কষ্ট হয়।
হাসপাতালে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য একাধিক বার উপর মহলকে জানিয়েছি। একটি জেনারেটর আছে সেটাও অকেজো। কয়েকটি আইপিএস আছে সেগুলো ঠিকমত কাজ করে না।
নাটোর পল্লি বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর চারঘাট জোনাল অফিসে র ডিজিএম প্রকৌশলী রঞ্জন কুমার সরকার বলেন, চারঘাট জোনাল অফিসের আওতায় বর্তমানেগ্রাহক সংখ্যা প্রায় ৬৭ হাজার।
বিশাল গ্রাহকের বিপরীতে বিদ্যুতের নিয়মতি দৈনিক চাহিদা সকাল ৬ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত ১০ মেগাওয়া্ট, বিকাল ৫ টা থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত ১৫ মেগাওয়াট এবং রাত ১১ টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত ১৪ মেগাওয়াট। কিন্তু পিক ও অফপিক আওয়ারে বিদ্যুৎ প্রাপ্তির সংখ্যা চাহিদার তুলনায় প্রায় অর্ধেক এর নিচে। তাই সেই হিসেবে লোডশেডিং দেয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here