চৌগাছায় গাছি দায়ের আঘাতে দুই সহোদরের প্রান গেল

0
546

যশোর প্রতিনিধিঃ যশোরের চৌগাছায় প্রতিপক্ষের গাছি দায়ের আঘাতে ইউনুছ আলী খান (৫৫) ও আয়ূব আলী খান (৬০) নামের দুই সহোদর নিহত হয়েছেন।৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷  তাদের উভয়ের বাড়ি চৌগাছা উপজেলার স্বরূপদাহ ইউনিয়নের টেঙ্গুরপুর গ্রামে। তারা ওই গ্রামের মৃত আবদুর রহমান খানের ছেলে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া এ সময় আয়ূব আলী খানের ছেলে আসাদুজ্জামান খান রনিকে (৩০) নামে আরও একজন গুরুতর জখম হয়েছেন। তাকে চৌগাছা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিতসা শেষে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে স্থানন্তর করা হয়।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়, আজ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটায় চৌগাছা-মহেশপুর সড়কের টেঙ্গুরপুর সর্দার ব্রিকসের বিপরীতে মুকুল হোসেনের চার দোকানের পাশে এই ঘটনা ঘটে। কাজের লোক শ্রমিক ঠিক করা নিয়ে ু ইউনুছ আলী খানের মধ্যে দোকানি মুকুলের কথা-কাটা কাটি হয়। ৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷   এ সময়  ইউনুসকে মুকুল, বিল্লাল ও বিপুল মারপিট করে তারা। পরবর্তীতে ইউনুস খান বাড়িতে গিয়ে তাঁর ভাই আইয়ুব খাঁ ও ভাতিজা আসাদুজ্জামান খানসহ মুকুলের দোকানে এসে এর প্রতিবাদ করতে গেলে মুকুল তাঁর ভাই বিপুল, বিল্লাল ও তাদের বাবা আফজাল খান মিলে ইউনুস খান ও তাঁর ভাই আইয়ুব খান ও আসাদুজ্জা মান খানকে গাছি দা ও বটি দিয়ে অতকিত হামলা চালায়। এতে ইউনুস খান, আইয়ুব খান ও আসাদুজ্জামান খান গুরুতর জখম হয়। স।থানীয়রা তাঁদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ইউনুছ আলী খান ও আয়ূব আলী খানকে মৃত ঘোষণা করেন।
অন্যদিকে আসাদুজ্জামান খানের মাথায় ও হাতে গুরুতর জখম হয়েছে। তার অবস্থার কোন উন্নতি না হওয়ায় তাকে ​যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম সবুজ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ ঘটনায় হত্যাকারী দের গ্রেপ্তারের জন্য জোর অভিযান চলছে।