Sunday, April 18, 2021
Home Blog

লামা পাহাড় থেকে জিপগাড়ি উল্টে ২ যুবক নিহত

0

নিউজ ডেস্ক:বান্দরবানের  লামায় পাহাড় থেকে নামার সময় জিপগাড়ি উল্টে ২ যুবক নিহত ও ২ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। শনিবার বিকাল ৪টায় উপজেলার ডিসি রোড সংলগ্ন নাপিতার ঝিরি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- লামা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সাপমারা ঝিরি এলাকার মো. শাহ আলমের ছেলে মো. মানিক (৩৫); তিনি জিপগাড়ির হেলপার ছিলেন এবং অন্যজন গজালিয়া ইউনিয়নের গাইন্ধাপাড়ার চিংহ্লা প্রু মার্মার ছেলে সুইহ্লাচিং মার্মা (৩৮)।

লামা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. মনিরুজ্জামান মোহাম্মদ বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই মানিকের মৃত্যু হয়েছে। আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

অন্যদিকে সুইহ্লাচিং মার্মাকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে রেফার করা হলে তার আত্মীয়স্বজন তাকে মালুমঘাট হাসপাতালে নিয়ে যান এবং সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

গাইন্ধাপাড়ার বাসিন্দা জয় মার্মা বলেন, খালি জিপটি মালামাল আনার জন্য লামা থেকে গজালিয়া যাচ্ছিল। যাত্রাপথে গজালিয়া বাজারের একটু আগে নাপিতার ঝিরি এলাকায় পাহাড় থেকে নামার সময় গাড়ির যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। রাস্তার উপরে দুই-তিনবার উল্টে গেলে গাড়ির ড্রাইভারসহ সবাই আহত হন।

জানা যায়, গাড়ির ড্রাইভার মো. এনাম দুর্ঘটনার পরপরই পালিয়ে গেছে। তার মাথায়ও আঘাত পেয়েছে বলে অন্য আহতরা জানান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, লামা হাসপাতালে ও ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য বাহিরে নেয়া হয়েছে। নিহতের লাশ পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

 

 

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

0

নিউজ ডেস্ক: টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। শনিবার বিকেলে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের উপজেলার আনালিয়াবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষনিক নিহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম জানান, মোটরসাইকেলসহ ওই দুজনের মরদেহ মহাসড়কের উপর পড়ে ছিলো। ধারনা করা হচ্ছে মোটরসাইকেলটিকে অজ্ঞাত কোন একটি ট্রাক পিছন থেকে ধাক্কা দিয়ে চলে গেছে।

এ কারণেই হয়তো দুজনের মৃত্যু হয়েছে। মরদেহ দুটি উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানায় রাখা হয়েছে। তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

চট্টগ্রামে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ৫

0

নিউজ ডেস্ক: বাঁশখালী থানার গণ্ডামারা ইউনিয়নের এস আলম গ্রুপের নির্মাণাধীন কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রকিদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আরো কয়েকজন আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

শনিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে পূর্ব বড়ঘোনা এলাকায় ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াটের ‘এসএস পাওয়ার প্ল্যান্টে’ এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, গণ্ডামারা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব বড়ঘোনা মো. আবু ছিদ্দিকের ছেলে আহমেদ রেজা (১৮), একই এলাকার অলি উল্লাহর ছেলে রনি হোসেন (২২), নূর জামানের ছেলে শুভ (২৪) ও মো. দালু মিয়ার ছেলে মো. রাহাত (২২)।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে মারা যাওয়া হাতিয়ার বাসিন্দা মো.রায়হান (১৮)। এ ঘটনায় আহত ১৩ জনকে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহতারা হলেন- হাবিব উল্লাহ (২১), মো. রাহাত (৩০), মিজান (২২), মো. মুরাদ (২৫), মো. শাকিল (২৩), মো. কামরুল (২৬), মাসুম আহমদ (২৪), আমিনুল হক (২৫), মো.দিদার (২৩), ওমর (২০) ও অভি (২২)।

এছাড়া গণ্ডামারা পুলিশ ফাঁড়ির তিন সদস্য আহত হয়ে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তারা হলেন- ইয়াসির (২৪), আব্দুল কবির ও (২৬), আসাদুজ্জামান (২৩)।

শ্রমিকরা জানান, শনিবার সকালে শ্রমিকরা দাবি দাওয়া নিয়ে আন্দোলনে গেলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে বাধে। এতে পুলিশের গুলিতে পাঁচ শ্রমিক নিহত হয়। গুলিবিদ্ধ হয় আরও ১৭ জন। বকেয়া বেতন পরিশোধ, বেতন বৃদ্ধির দাবি, শুক্রবার এক বেলা কাজ করা ও ইফতারের জন্য সময় বরাদ্দসহ ১০ দফা দাবিতে বিক্ষোভ করে শ্রমিকরা। এছাড়া শ্রমিক নিহতের খবরে বিদ্যুৎকেন্দ্রের ভেতর বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা আগুন ধরিয়ে দেয়।

মিলন হোসেন রকি নামে এক শ্রমিক প্রতিদিনের সংবাদকে জানান, আমাদের চায়নারা সবসময় কাজে চাপের মধ্যে রাখে। আমাদের নামাজ ও রোযার ইফতারি করার পর্যন্ত সময় দেয়া হয়না। অনেক সময় নমাজ পড়ার সময় চাইনার এসে আমাদের বিভিন্ন বস্তু দিয়ে আঘাত করেন।

বাঁশখালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল ইসলাম জানান, বাঁশখালী বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়েছে। ওই সংঘর্ষে চারজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। তাদের মরদেহ বাঁশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছে।

এদিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল হক ভুঁইয়া জানান, বাঁশখালীতে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনায় আহত অবস্থায় ১৬ জনকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। তাদের মধ্যে রায়হান নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আহতদের মধ্যে তিনজন পুলিশ সদস্য আছেন, এর মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর।

 

ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান জনপ্রতিনিধিরাই ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করবেন : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

0

নিউজ ডেস্ক:স্থগিত হওয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী এলাকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগ পর্যন্ত বর্তমান চেয়ারম্যান-মেম্বারগণই সরকারি ত্রাণ কার্যক্রম বিতরণসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

এছাড়া, মন্ত্রণালয়ের চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম এবং প্রকল্পের অগ্রগতি ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে পরিদর্শন করতে পরিচালক ও উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকারগণকে নির্দেশনা দেন মন্ত্রী।

সরকারি বাসভবন মিন্টু রোড থেকে স্থানীয় সরকার বিভাগের প্রতিষ্ঠানসমূহের সাথে চলমান কোভিড সংক্রমণ প্রতিরোধ এবং উন্নয়ন কার্যক্রম নিয়ে ধারাবাহিক ভার্চুয়ালি মতবিনিময় সভার অংশ হিসেবে শনিবার সকল পরিচালক ও উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকারগণের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, চলমান করোনা সংক্রমণ প্রকট আকার ধারণ করায় নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। স্থগিত হওয়া নির্বাচনী এলাকায় সরকারের ত্রাণ কার্যক্রমসহ অন্যান্য কাজ বর্তমান চেয়ারম্যান-মেম্বাররা করবে কিনা এমন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগ পর্যন্ত বর্তমান নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং মেম্বাররা সকল কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাবেন।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারিতেও চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রকল্পের কাজ চলছে কিনা অথবা কাজের অগ্রগতি কেমন তা সশরীরে পরিদর্শন না করে ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার করে পরিদর্শন করার জন্য পরিচালক এবং উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকারগণকে নির্দেশ দেন তিনি।

নিম্নমানের কাজ এবং অনিয়ম কোনোক্রমেই সহ্য করা হবে না তা পুনরায় ব্যক্ত করে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, মনিটরিংয়ের অভাবে যাতে কেউ নিম্নমানের কাজের সাথে জড়িয়ে না পড়ে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ এবং পৌরসভাসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে অনেক সরকারি বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে। এসব বরাদ্দ ঠিকমতো বাস্তবায়ন অথবা সঠিকভাবে ব্যয় করা হচ্ছে কিনা তা তদারকি করার জন্য নির্দেশ দেন ।

এ সময় জেলা পর্যায়ে কর্মরত উপ-পরিচালক-ডিডিএলজি পদে জনবল সংকট থাকায় এ সংকট দূরীকরণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ।

সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চালানো তাণ্ডবের প্রসঙ্গে মো. তাজুল ইসলাম বলেন, সেখানকার জেলা পরিষদ, পৌরসভাসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করা হবে। যারা দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায় তাদের শক্ত হাতে মোকাবিলা করা হবে বলেও জানান তিনি ।

সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের মহাপরিচালক (পরিবীক্ষণ,মূল্যায়ন ও পরিদর্শন ইউনিট), অতিরিক্ত সচিব এবং সকল বিভাগের পরিচালক এবং জেলায় কর্মরত উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকারগণ অংশ নেন।

 

জ্বর বেড়েছে খালেদা জিয়ার

0

নিউজ ডেস্ক:করোনা আক্রান্ত বেগম খালেদা জিয়ার শরীরে জ্বর বেড়েছে। তবে এই মুহূর্তে হাসপাতালে নেয়ার প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক এফ এম সিদ্দিকী।

শনিবার রাতে গুলশানে বেগম জিয়ার বাসায় তার সবশেষ শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণের পর চিকিৎসক জানান, ফুসফুসে সামান্য সংক্রমণ থাকলেও, ভালো আছেন তিনি। আপাতত বাসাতেই তার চিকিৎসা চলবে। যে কোনো সময় প্রয়োজন হলে তাকে হাসপাতালে নেয়ার প্রস্তুতি আছে বলেও জানান চিকিৎসক।

গত ১০ এপ্রিল করোনা পরীক্ষা করান বিএনপি চেয়ারপারসন। পরদিন পরীক্ষায় পজিটিভ শনাক্ত হন তিনি। বেগম জিয়ার পাশাপাশি তার বাসার আরো ৮ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে বিএনপি চেয়ারপারসন হাসপাতাল থেকে বাসভবনে ফেরার পর খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দলের সদস্য ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন জানান, বিএনপি চেয়ারপারসনের সিটি স্ক্যান রিপোর্ট অনেক ভালো অবস্থানে। তার রিপোর্টে যেটা পাওয়া গেছে তা অত্যন্ত মার্জিন পর্যায়ে আছে, যেটাকে মাইনর হিসেবে ধরা যায়। তার করোনার উপসর্গ খুবই কম।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে বিএনপির ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে, করোনা আক্রান্ত খালেদা জিয়ার ফুসফুসে সংক্রমণের মাত্রা যেটা পাওয়া গেছে সেটা সাত শতাংশের মতো। যা সন্তোষজনক বলছেন চিকিৎসকরা। এর আগে গত ১১ এপ্রিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে তার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি জানানো হয়৷

চলে গেলেন চিত্রনায়ক ওয়াসিম

0

নিউজ ডেস্ক:না ফেরার দেশে চলে গেলেন চিত্রনায়ক ওয়াসিম। রাজধানীর শাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শনিবার রাত সাড়ে ১২টায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক জায়েদ খান।

১৯৭২ সালে ঢাকাই সিনেমাতে ওয়াসিমের অভিষেক হয় সহকারী পরিচালক হিসেবে ‘ছন্দ হারিয়ে গেলো’র মাধ্যমে। আর নায়ক হিসেবে তার যাত্রা শুরু হয় মহসিন পরিচালিত ‘রাতের পর দিন’ সিনেমার মাধ্যমে। দিন যতই যেতে থাকে ওয়াসিমের জনপ্রিয়তা ততই আকাশচুম্বী হয়। এক সময় বাণিজ্যিক ঘরানার সিনেমায় অপরিহার্য নায়ক হয়ে ওঠেছিলেন তিনি।

নায়ক ওয়াসিম অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমার মধ্যে রয়েছে- ‘ছন্দ হারিয়ে গেলো’, ‘রাতের পর দিন’, ‘দোস্ত দুশমন’, ‘দি রেইন’, ‘রাজদুলারী’, ‘বাহাদুর, ‘মানসী’, ‘সওদাগর’, ‘নরম গরম’, ‘বেদ্বীন’, ‘ঈমান’, ‘লাল মেম সাহেব’ ইত্যাদি। বর্তমানে সিনেমা থেকে দূরেই ছিলেব তিনি। দীর্ঘদিন ধরে তার নতুন কোনো সিনেমা মুক্তি পায়নি।

লকডাউন আরও ১ সপ্তাহ বাড়তে পারে

0

নিউজ ডেস্ক:করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে চলমান ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর চিন্তাভাবনা করছে সরকার।

শনিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, করোনার সংক্রমণ বেশি থাকায় চলমান লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়তে পারে।

লকডাউন পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে এ বিষয়ে সোমবার সভা ডাকা হয়েছে। সেখানেই লকডাউনের বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে বলে জানান তিনি।

দেশে করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে বুধবার থেকে কঠোর বিধিনিষধের ঘোষণা করে সরকার। এই বিধিনিষেধকে বলা হচ্ছে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’।

গত বুধবার ভোর ৬টা থেকে আগামী ২১ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত সাতদিন এ বিধিনিষেধ কার্যকর থাকবে। তবে গার্মেন্টসসহ শিল্প কারখানা এবং ব্যাংক খোলা রয়েছে।

চলাচলে কড়াকড়ি আরোপসহ নানা নিষেধাজ্ঞায় বুধবার ভোর থেকে সরকারের এই নির্দেশনা কার্যকর হয়েছে। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় জনসাধারণের চলাচল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য চেকপোস্ট বসিয়েছে পুলিশ। এসব চেকপোস্টে গাড়ি থামিয়ে যাত্রীদের পরিচয় এবং রাস্তার বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞেস করা হচ্ছে।

যেসব পেশার মানুষ জরুরি সেবার সঙ্গে সম্পৃক্ত, তাদের চেকপোস্ট অতিক্রম করার অনুমতি দিয়ে অন্যদের ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া অনেক রাস্তাতে বেরিকেড বসিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সেসব রাস্তায় জরুরি সেবা সংস্থারও কোনো যানবাহন যেতে পারছে না; যেতে হচ্ছে বিকল্প রাস্তায়। ‘মুভমেন্ট পাস’ ছাড়া সাধারণ মানুষকে বাড়ির বাইরে আসতে দেওয়া হচ্ছে না।

করোনায় দেশে আজও শতাধিক মৃত্যুর রেকর্ড

0

নিউজ ডেস্ক:  লকডাউন’র চতুর্থ দিনে দেশে করোনায় আজও সর্বোচ্চ ১০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে গতকাল শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) একদিনে সর্বোচ্চ ১০১ জনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০ হাজার ২৮৩ জনে।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩ হাজার ৪৭৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এতে দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ১৫ হাজার ২৫২ জনে।

করোনাভাইরাস নিয়ে শনিবার (১৭ এপ্রিল) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, এদিন সুস্থ হয়েছেন আরও ৫ হাজার ৯০৭ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৬ লাখ ৮ হাজার ৮১৫ জন।

এর আগে শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) দেশে আরও ৪ হাজার ৪১৭ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এছাড়া মারা যান দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১০১ জন।

:মৃত্যুর পরোয়ানা-” ‘–নবেল করোনা””:-

0

:মৃত্যুর পরোয়ানা-” ‘–নবেল করোনা””:

লেখক,আলী রেজা খান।

হঠাৎ চিনের উহান শহর থেকে আসা অদৃশ্য মৃত্যুর পরোয়ানা—
বৈশ্বিক মহামারী মরণব্যাধি নাম তার নবেল-করোনা—।।

শুরু টা হাচ্চি- কাশি শরীর ও গলাব্যথা শ্বাস কষ্ট সহ জ্বরদাহ্ যন্ত্রণা—-
ভুক্তভোগীরাই মাত্র উপলব্ধি করে’—- করোনার মৃত্যুর অসহনীয় বেদনা–।।

নেই কোন প্রতিশোধক নেই কোন টিকা–
ভ্যাকসিন আবিষ্কারে মরিয়া বিশ্বের বৈজ্ঞানিকরা—।।

গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে আছে”–কোভিট নাইটিনের মরণ ছোবল থাবা—
থমকে গেছে পৃথিবী আতংকিত মানুষ
বন্ধ হয়েছে মসজিদুল হারাম, নবাবী সহ আল্লাহর ঘর কাবা—।।

প্রতিদিন ইটালী ফ্রান্স স্পেন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে মানুষ মরেছে শতো-শতো—–
পৃথিবীটা আজ লকডাউনে তবুও থামছেনা মৃত্যুর মিছিল যতো—।।

সারা পৃথিবীতে চলছে অস্ত্রবিহীন নিরব বিশ্ব যুদ্ধ—-
বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্রগুলো এই মরণ ব্যাধির কাছে ব্যর্থ—–।।

শতো-শতো নিথর মরোদেহ ইটালীর মর্গে আছে পরে—-
রাতের অন্ধকারে সামরিক ট্রাকে নিচ্ছে অজানা পথ ধরে—–।।

নিউইয়র্কে-হাট আইল্যান্ডে দেওয়া হয়েছে হাজার-হাজার গণকবর—-
স্বরণকালের বিশ্বের ইতিহাসে এটি মমস্পসী খবর—।।

বিশ্বের ধনকুবের মালিক বিলগেটস দিয়েছে ঘোষণা—
ভ্যাকসিন আবিষ্কারকদের দিবেন মোটা প্রনদনা—।।

জোসেফ কোন্তি আঁকাশে তাঁর দিয়ো”র কাছে ক্ষমা চান—
হাসপাতালের বেডে পাজ্ঞালড়ছে বরিস-জনসন—-।।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ত্রাণ বাংলায় হয় চুরি—-
ডোনাল ট্টাম দিশেহাড়া জাস্টিনট্টডু আবেগে আপ্লুত হয়ে কান্নায় ভেঙে যায় পড়ি—।।

দলে-দলে চাইনিজ হয়েছে মুসলমান, নামাজ পড়ে ও পড়ে কোরআন—-
ওহে মুসলিম গণ–!!
তওবা করো ঈমান গড় হও খাঁটি মুসলমান—।।

তুলে দুই হাত করি ফরিয়াদ ক্ষমা করো প্রভূ ক্ষমা করো হয়রত—-
তুলে নেও করোনা দিওনা আর এই মৃত্যুর পরোয়ানা—।।

উদিত করো নুতন ভোর জাগ্ৰীত হোক মানবজাতি—-
ফিরে পাক নির্মল পরিবেশ, প্রাণ ভরে নেক স্বস্তির নিঃশ্বাস এটাই আমাদের বিশ্বাস—।

রমজানে স্বাস্থ্যসম্মত খাওয়া-দাওয়া।”

0

ডা. মো: সাইফুল আলম

দিনের বেলায় দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকার কারণে রোজার শেষে শরীর, মস্তিষ্ক ও স্নায়ুকোষ খাবারের মাধ্যমে তাৎক্ষণিক শক্তির জোগান চায়। তাই দীর্ঘ সময় পর ইফতারে খাবার হতে হবে সহজ স্বাস্থ্যকর, পুষ্টিকর ও সুষম।

রমজানে স্বাস্থ্যসম্মত ইফতারঃ
ইফতার খাবার সময়কে দুই ভাগে ভাগ করে খাওয়া স্বাস্থ্যসম্মত। মাগরিবের নামাজের আগে কিছুটা আর বাকিটা মাগরিবের নামাজের পর খেতে হবে। কারণ একসঙ্গে বেশী খেলে নানারকম জটিলতা তৈরি করে শরীরকে ক্লান্ত করতে পারে। ইফতার শুরু করতে পারেন শরবত বা ডাবের পানি দিয়ে।

তবে খেয়াল রাখতে হবে, শরবতে যেন চিনি কম হয়।তবে শরবতের মধ্যে চিনি না দিয়ে গুড় দিতে পারেন। ইফতারে অবশ্যই খেজুর খাওয়া উচিত। কারণ, খেজুর শরীরে দ্রুত শক্তি জোগায়। এতে আছে শর্করা, চিনি, সোডিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, কপার, সালফার, ম্যাঙ্গানিজ, সিলিকন, ক্লোরিন ফাইবার, যা সারা দিন রোজা রাখার পর খুবই দরকারি। ভাজাপোড়ার বদলে স্যুপ, দই–চিড়া ইত্যাদি খাওয়া ভালো। মৌসুমি ফল খাওয়া উচিত। এই গরমে যে ফলে পানির পরিমাণ বেশি, যেমন: তরমুজ, বাঙ্গি, আনারস ইত্যাদি বেশি খাওয়া উচিত। ফলের জুস, মিল্ক শেক ইত্যাদিও তৈরি করে খাওয়া যেতে পারে। তবে যারা ভাজাপোড়া খেতে পছন্দ করেন তারা বাসায় তৈরি পরিমাণ মত বিশুদ্ধ তেলে ভাজা পেঁয়াজু, আলুর চপ, বেগুনী, জিলাপি এবং বুট ও মুড়ি রাখতে পারেন।

এছাড়াও খাবারের আইটেমে ভিন্নতা আনতে নুডুলস, সেমাই ইত্যাদি রাখতে পারেন। এছাড়াও প্রতিদিনের ইফতারে টকদই রাখতে পারেন। এটি আপনার শরীরের জন্য খুবই উপকারী। বিশেষ করে এর প্রোবায়োটিক শ্বাসযন্ত্র এবং পরিপাকতন্ত্রের সংক্রমণে কার্যকরী। সালাদা কিংবা ছোলার সঙ্গেও মিশিয়ে খেতে পারেন টকদই।

রমজানে স্বাস্থ্যসম্মত রাতের খাবারঃ

খাদ্য তালিকায় সব ধরনের খাবার থাকতে হবে। যেমন আমিষ, শর্করা, ফ্যাট, ভিটামিন, দুধ, দই, মিনারেলস, ফাইবার ইত্যাদি। রাতের খাবারে ঢেঁকিছাঁটা লাল চালের ভাতের সঙ্গে সবজি রাখতে পারেন।এছাড়াও লাউ, লাউশাক, মিষ্টি কুমড়া, শসা, পটল, ঝিঙে, কচুশাক ও কচু ইত্যাদির ঝোলে তরকারি, এক টুকরা মাছ অথবা এক টুকরা মাংস হতে পারে। দুধ-কলা স্বাস্থ্যসম্মত। চিনিযুক্ত খাবার বাদ দিলে ভালো হয়। প্রতিবেলা মাংস না খেয়ে অন্তত একবেলা মাছ খেতে চেষ্টা করুন।

এই গরমে অন্তত ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি না খেলে হজমের সমস্যা হবে। তাই ইফতারের পর থেকে ঘুমাতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত একটু পরপর পানি খেতে হবে।

রমজানে স্বাস্থ্যসম্মত সেহরিঃ
শরীরটাকে সুস্থ রাখার জন্য সেহেরি খাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মনে রাখতে হবে, সেহেরীর খাবার মুখরোচক, সহজ পাচ্য ও স্বাস্থ্য সম্মত হওয়া প্রয়োজন। অধিক তেল, অধিক ঝাল, অধিক চর্বি জাতীয় খাবার খাওয়া একদম উচিত নয়। অনেকেই মনে করেন যেহেতু সারাদিন না খেয়ে থাকতে হবে, তাই সেহেরীর সময় প্রয়োজনের অতিরিক্ত বেশি বেশি খাবার খেতে হবে। তা মোটেই ঠিক নয়, কারণ চার পাঁচ ঘণ্টা পার হলেই খাদ্যগুলো পাকস্থলী থেকে অন্ত্রে গিয়ে হজম হয়ে যায়। তাই প্রয়োজনর তুলনায় বেশি না খাওয়াই ভালো, বরং মাত্রাতিরিক্ত খেলে ক্ষতির সম্ভাবনাই বেশি। ভাত বাঙালির প্রধান খাবার।

তাই সেহরিতে সাদা ভাত রাখতে পারেন। তবে ভাতের সঙ্গে রাখতে হবে উচ্চ প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার যেমনঃ মাছ, মাংস ও ডিম। খরচ কমাতে চাইলে ভাতের সঙ্গে শুধু ডিম ও ডাল রাখতে পারেন। ডাল উদ্ভিজ প্রোটিন বলে এতে ক্ষতিকর চর্বি নেই। সেহরির খাবার তালিকায় যে কোনো একটি সবজি থাকা বাঞ্ছনীয়। ফুলকপি, বাঁধাকপি, পেঁপে, করলা, আলু, টমেটো এর কয়েকটি বা যে কোনো একটি রাখলে চলবে। পাকস্থলিতে উত্তেজনা ও অস্বস্তি সৃষ্টি করে এমন কোনো খাবার খাওয়া উচিত নয়।

রমজান মাসে রোজা রাখার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি সহজেই তার স্বাস্থ্যের উল্লেখযোগ্য উন্নতি ঘটাতে পারে, যদি ঠিক ডায়েট অনুসরণ করা হয়।কখনোই শুধু পানি খেয়ে রোজা রাখবেন না। অতিভোজন থেকেও বিরত থাকুন। খাবার ভালো ভাবে চিবিয়ে ধীরে ধীরে খান, যা আপনার হজমে সহায়ক হবে।

করোনা মহামারীর এই রমজানে নিয়ম মেনে সঠিক খাদ্য গ্রহণ করুন, সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন। সবাইকে পবিত্র মাহে রমজানের শুভেচ্ছা।

 

সর্বশেষ