Home Blog Page 3

মৌলভীবাজারে জেলা পুলিশের মাস্টার প্যারেড, মাসিক কল্যাণ ও অপরাধ সভা

0
সুভাষ দাশ তপন,শ্রী শ্রীমঙ্গল মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:মৌলভীবাজারে জেলা পুলিশের মাসিক মাস্টার প্যারেড, কল্যাণ ও অপরাধ সভা অনুষ্টিত হয়েছে।
মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে মৌলভীবজার পুলিশ লাইন্স মাঠে জেলা পুলিশের মাস্টার প্যারেড, মাসিক কল্যাণ সভা এবং মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় মোহাম্মদ জাকারিয়া মহোদয় জেলা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের সদস্যদের অংশগ্রহণে প্যারেড পরিদর্শন করেন এবং অভিবাদন গ্রহণ করেন।
প্যারেড শেষে পুলিশ লাইনস ড্রিল শেডে জেলা পুলিশের মাসিক  কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল সার্কেল) শহীদুল হক মুন্সীর সঞ্চালনায় মাসিক কল্যাণ সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া। কল্যাণ সভায় জেলা পুলিশের বিভিন্ন থানা, ফাঁড়ি ও ইউনিটে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের বিভিন্ন সমস্যা ও তার সমাধান নিয়ে আলোচনা করা হয়।
কল্যাণসভা জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস) সুদর্শন কুমার রায়ের সঞ্চালনায় মাসিক অপরাধ সভায় জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি, বিট পুলিশিং কার্যক্রম জোরদার, গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল, স্পর্শকাতর মামলা সমূহের অগ্রগতি ও জেলার গোয়েন্দা কার্যক্রমসহ বিভিন্ন বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হয়।
অপরাধ সভায় মৌলভীবাজার জেলার থানা ও পুলিশ সদস্যদের কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

ঝিনাইদহের মহেশপুরে ককটেল ও পেট্রোল বোমা উদ্ধার

0
মহেশপুর (ঝিনাইদহ)সংবাদদাতাঃ
ঝিনাইদহের মহেশপুর মহিলা কলেজ পাড়া থেকে ৪টি পেট্রোল বোমা ও ৩টি ককটেল উদ্ধার করেছে ঝিনাইদহের মহেশপুর থানা পুলিশ।  সোমবার মধ্যরাতে মহিলা কলেজ পাড়ার আলহেরা দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন ইউনুস সিদ্দিকের বাড়ির পাশে পাঁকা রাস্তা থেকে পেট্রোল বোমা ও ককটেল উদ্ধার করা হয় ।
এ ঘটনায় মহেশপুর থানায় বিস্ফোরক আইনে একটি মামলা হয়েছে।
মহেশপুর থানা সূত্রে জানাগেছে, সোমবার রাত ২টার সময় একটি ফোন কল থেকে প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে মহেশপুর কলেজপাড়া থেকে একটি লাল ব্যাগে থাকা উক্ত ককটেল ও পেট্রোল বোমা পুলিশ উদ্ধার করে।
মহেশপুর থানার (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন বলেন, তারা খবর পেয়ে উক্ত ব্যাগটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ৪টি পেট্রোল বোমা ও ৩টি ককটেল দেখতে পায়। মহেশপুর থানার চৌকস টিম এসআই আসাদ, এসআই সাইদুর, এসআই মাহমুদ, এসআই সুব্রত সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
এ বিষয়ে ১৯০৮ সালের বিস্ফোরক আইনের ৪এর (খ)ধারায় মামলা হয়েছে। যার নং-১৩,তারিখ-৫/১২/২২ইং।

সাতক্ষীরায় ঢাকাগামী পরিবহনের ধাক্কায় এক ভ্যান চালক নিহত

0

মুহা: জিললুর রহমান,সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরায় ঢাকাগামী গ্রীনলাইন পরিবহনের ধাক্কায় আব্দুল জব্বার সরদার নামের এক ভ্যান চালক নিহত হয়েছে। সোমবার বিকাল পৌনে ৫টার দিকে শহরের পলাশপোল এলাকায় ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতালের সামনে সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘাতক পরিবহনটি আটক করেছে।

নিহত ভ্যান চালকের নাম আব্দুল জব্বার সরদার (৪৫)। তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ি ইউনিয়নের শিমুলবাড়িয়া গ্রামের হাশেম আলী সরদারের ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, আব্দুল জব্বার ভ্যান চালিয়ে শহরের খুলনা মোড় এলাকা থেকে নারিকেলতলার দিকে আসছিল। পতিমধ্যে বিকাল পৌনে ৫টার দিকে শহরের পলাশপোল এলাকায় ইসলামী ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতালের সামনে সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কে ঢাকাগামী গ্রীনলাইন পরিবহনের একটি বাস পিছন দিক থেকে তার ভ্যানকে ধাক্কা দেয়।

এতে ভ্যান থেকে ছিটকে রাস্তায় পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর আহত হন ভ্যান চালক আব্দুল জব্বার। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে দ্রুত সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তৃব্যরত চিকিৎস্যক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ মোঃ ফকরুল আলম খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘাতক পরিবহনটি আটক করা সম্ভব হলেও চালক ও সুপারভাইজার পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

কালীগঞ্জে বোমা বিস্ফোরন: বিএনপি জামাতের প্রায় অর্ধশত ব্যাক্তির নামে মামলা

0

মোঃ হাবিব ওসমান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে বারবাজার আ’লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে বোমা বিস্ফোরন ঘটিয়েছে দূর্বৃত্তরা। রোববার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে বারবাজারে এ ঘটনা ঘটে।

তবে কোন হতাহত হয়নি। পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্ফোরিত বোমার আলামত উদ্ধার করেছে। স্থানীয় আ’লীগের নেতা কর্মীদের দাবী সরকার বিরোধী বিএনপি জামাত সমর্থিত কর্মীরা এ ঘটনায় সাথে জড়িত।

এদিকে বোমা বিস্ফোরনের ঘটনায় ওই রাতেই ৭ জনের নাম উল্লেখ সহ প্রায় অর্ধশত ব্যাক্তির নামে কালীগঞ্জ থানাতে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার বাদী বারবাজার ইউনিয়ন আ’লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম তার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, ওই রাতে তারা দলীয় অফিসে বসেছিলেন। রাত সাড়ে ১০ টার দিকে ৪ টি মটর সাইকেলে করে ৮/১০ জন দূর্বৃত্ত দলীয় কার্ষালয়ের সন্মুখে এসে একটি শক্তিশালী বোমার বিস্ফোরন ঘটায়।

এ সময় দলীয় নেতা কর্মীরা বের হয়ে তাদেরকে ধাওয়া করলে পালিয়ে যায়।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে বিস্ফোরিত বোমার আলামত উদ্ধার কওে নিয়ে যায়।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ আব্দুর রহিম মোল্ল্যা জানান, বোমা বিস্ফোরনের খবর পেয়ে তারা রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। বোমার আলামত উদ্ধার করেছে।

এ ঘটনায় থানাতে একটি এজাহার পেয়েছেন বলে জানান তিনি।

কালীগঞ্জে তামাকজাত দ্রব্য ব্যাবহার রোধে কর্মশালা

0

মোঃ হাবিব ওসমান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃকালীগঞ্জে তামাকজাত দ্রব্য ব্যাবহার রোধে সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, মসজিদের ইমাম ও এনজিও প্রতিনিধিদের নিয়ে এক কর্মশালা অনুষ্টিত হয়েছে।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর আয়োজনে বুধবার কমপ্লেক্্েরর কনফারেন্স রুমে এক দিনের ওই কর্মশালায় কো-অডিনেটর ছিলেন কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ আলমগীর হোসেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের শিক্ষা ব্যুরোর ২০২২-২৩ অর্থ বছরের অপারেশন প্লান ’লাইফ ষ্টাইল” এবং হেলথ এডুকেশন ও প্রমোশন কর্মসূচীর আওতায় কর্মশালায় রিসোর্স পারসন ছিলেন, কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্েরর মেডিকেল অফিসার ডাঃ আজগর আলী ও ডাঃ নাজমুল ইসলাম।

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিসের বাস্তবায়নে কর্মশালার মতবিনিময়ে অংশ নিয়ে বক্তব্য রাখেন, কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি জামির হোসেন, পৌর কাউন্সিলর আশরাফুজ্জামান রনি সাংবাদিক এনামুল হক, নয়ন খন্দকার ও মসজিদের ইমামসহ এনজিও কর্মীগন।

সান্তাহার- কাশমিল্লা সড়কের বেহালদশা

0
আদমদীঘি বগুড়া প্রতিনিধি : আদমদীঘির সান্তাহার-কাশমিল্লা সড়কের বিভিন্ন  স্থানে  কাপেটিং উঠে বড় বর গর্তের সৃষ্টি হয়ে সড়কটি বেহাল দশায় পরিনিত হয়েছে।

ফলে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন এবং পথচারীরা চলাচল করছে। জানাযয়, আদমদিঘী উপজেলার সান্তাহার -শহরের সাইলো সড়ক থেকে কাশমিল্লা প্রসাদখালি ও হয়ে দমদমা গ্রাম পর্যন্ত প্রায়  ৫ কিলোমিটার সড়কের বিভিন্ন স্থানে কাপেটিং ও খোওয়া উঠে বড় বর গর্তের সৃষ্টি হয়ে সড়কটি বেহাল দশায় পরিনিত হয়।

এতে সবধরনের  যানবাহন সহ কাশমিল্লা, প্রসাদ খালি, উৎরাইল,কায়েতপাড়াসহ প্রায়  ৬ গ্রামের র মানুষ ব্যাপক ঝুঁকি নিয়ে উক্ত পথে চলাচল করছে। কাশমিল্লা গ্রামের  মঙ্গল রহমান নান্টু বলেন প্রায় এক যুগের বেশি সময় যাবত আমরা অনেক কষ্ট করে সান্তাহার শহরের ব্যবসা প্রতিষ্টানে যাচ্ছি।

ওই গ্রামের কৃষক সালাম জানান, সড়কের দুরবস্থার কারনে আমরা আমাদের উৎপাদিত  ফসল সময়মত বাজারে নিতে পারিনা। ফলে ভুক্তভোগী উল্লেখিত গ্রামবাসী বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও সড়ক বিভাগের সু-দূষ্টি কামনা করেছেন। #

ঝিকরগাছায় বিদ্যালয় চলকালিন সময়য়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থী উপস্থিতি শুন্য

0
Exif_JPEG_420

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের ঝিকরগাছার বাবরআলী সরদার বিশেষ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের চলকালিন সময়য়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থী উপস্থিতি শুন্য।

প্রতিষ্ঠানের কোন প্রকার অনুষ্ঠান হলে সেই দিন শিক্ষার্থী বসানোর স্থান খুঁজে পাওয়া দায় হয়ে থাকে বলে এলাকায় একাধিক অভিযোগ উঠার বিষয়ে তথ্য অনুসন্ধানে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা গত ৩০ নভেম্বর বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার সময় ঝিকরগাছা উপজেলার পানিসারা ইউনিয়নের রঘুনাথনগরের অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বাবর আলী সরদার বিশেষ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে বিদ্যালয়েরর বাস্তবতার চিত্র তুলে ধরেন।

উক্ত দিন বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোছাঃ রেহেনা খাতুনের সাথে দেখা হলে তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ৯০-১০০জন শিক্ষার্থী নিয়ে প্রতিষ্ঠান চলে। আমাদের সংরক্ষিত ছুটি চলছে। আজ (বুধবার) ও কাল (বৃহস্পতিবার) আমাদের বন্ধ।

তবে সেই সময় তারা বিদ্যালয় বন্ধের কোন নোটিশ দেখাতে ও কর্মরত শিক্ষক ও অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের তালিকা চাওয়া হলে সেটাও তিনি দিতে পারেনি।

পরবর্তীতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শনিবার (০৩ ডিসেম্বর) একটি বহুপ্রচালিত দৈনিক পত্রিকায় বৃহস্পতিবার (০১ ডিসেম্বর) ৪শ ৭০জন শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে ক্লাস হওয়ার কথা উল্লেখ করেন।

বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য অনুযায়ী তাদের সংরক্ষিত ছুটি শেষে রবিবার (০৪ ডিসেম্বর) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিদ্যালয় চলবে।

রবিবার (০৪ ডিসেম্বর) দুপুর ১টা ২৫মিনিটের সময় স্থানীয় সংবাদকর্মীরা বিদ্যালয়ে উপস্থিত হলে বিদ্যালয়ের মেন ফটক তালাবদ্ধ পাওয়া যায়।

তাৎক্ষনিক ভাবে প্রধান শিক্ষক মোঃ মহিতুল রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলেন তিনি বলেন, সবদিন তো এক রকম চলবে না। আর এখন তো ডিসেম্বর মাস। বাচ্চাদের পরিক্ষারও বিষয় আছে।

আজকে বাচ্চাদের পরিক্ষা ছিলো কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আজকে কোনো পরিক্ষা ছিলো না। তিনি আজ বিদ্যালয়ে আসছিলেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমি আপনার সাথে পরে কথা বলি বলে তিনি ফোন রেখে দেন। সভাপতি মোঃ আব্দুল আলিম বলেন, আমি এখন ঢাকায় যাওয়ার জন্য রওনা দিয়েছি।

বিদ্যালয়ের সময় ২টার সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতিবন্ধী বাচ্চাদের ২টা পর্যন্ত রাখা যায় ! দেড়টার সময় গাড়ি চলে যায়। আমরা সব ৫/৭মিনিট আগে বেরিয়ে আইছি।

শিক্ষক আতিয়ার রহমান বলেন, কোনো কাগজেই মশিয়ার নেই। তার সব কাগজে মোরশেদ লেখা আছে।

তবে নাম সংশোধনের প্রক্রিয়া চলছে। কয়েকদিনের মধ্যে মোরশেদ মশিয়ার হয়ে যাবে।

 

ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশ সুপার কাপ ভলিবল টুর্নামেন্ট ২০২২ এর শুভ উদ্বোধন

0

রহমত আরিফ ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতাঃ ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশ সুপার কাপ ভলিবল টুর্নামেন্ট ২০২২ এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা পুলিশের আয়োজনে পুলিশ লাইন্স মাঠেএ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার  (৫ ডিসেম্বর) পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেনের নির্দেশনায় পুলিশ সুপার কাপ ভলিবল টুর্নামেন্ট ২০২২ এর শুভ উদ্বোধন করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ক্রাইম এন্ড অপস্) মোঃ আসাদুজ্জামান।

এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন,পুলিশ লাইন্স এর সংরক্ষিত পুলিশ পরিদর্শক (আরআই)মোঃ নুরনবী সরকার সহ জেলা পুলিশের কর্মকর্তা  কর্মচারীবৃন্দ ও প্রেশক্লাব শভাপতি মাজেদুর রহমান সাধারণ সম্পাদক রহমতউল্লা খান প্রমুখ ।

শৈলকুপায় ক্লিনিক প্লাস ঔষধ ব্যবহারে পেঁয়াজ চারার ক্ষতি, পেঁয়াজ চাষীদের মাথায় হাত

0

মফিজুল ইসলাম শৈলকুপা(ঝিনাইদহ) ঃ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় কেমিষ্ট ক্রপ কেয়ারকোম্পানীর আগাছা দমনের বালাইনাশক ঔষধ স্প্রে করে পেঁয়াজের চারা মরার ঘটনা
ঘটেছে। ঘটনাটি উপজেলার ধলহরাচন্দ্র ইউনিয়নের কুশবাড়ীয়া গ্রামের কুশবাড়িয়া দক্ষিণ মাঠে।

এই ঔষধ ব্যবহার করায় ৬-৭ বিঘা জমির পেঁয়াজ চারা নষ্ট
হয়েছে বলে জানা যায়। এই চারা থেকে প্রায় ১০০বিঘা জমিতে পেঁয়াজ লাগানো সম্ভব হত ।

চারা মরে যাওয়ার ফলে প্রায় কোটি টাকার মত ক্ষতি হয়েছে বলে পেঁয়াজ চাষীরা জানান। এদিকে এমন ক্ষতিতে কৃষকরা দিশেহারা হয়ে উঠেছে।

সরেজমিন মাঠ ঘুরে দেখা যায়,উপজেলার কুশবাড়িয়া দক্ষিণপাড়ার এই মাঠে ১৫ থেকে ২০ জন কৃষক লাল তীর কিংসহ অন্যান্য কোম্পানীর ৬০ কেজির মত পেঁয়াজ
বীজ বপন করেছিল প্রায় ৬-৭ বিঘা জমিতে।

কযেকদিন বাদেই পুরোদমে পেঁয়াজ লাগানোর জন্য মাঠ প্রস্তত হচ্ছে।

চারাগুলো ধীরে ধীরে বড় হওয়ায় এর মধ্যে আগাছা
জন্মায় । কেমিষ্ট ক্রপ কেয়ার কোম্পানীর ক্লিনিক প্লাস ঔষধ স্প্রে করার ৩-৪ দিন পর চারা মরে মাটির সাথে একেবারে মিশে আছে।

এই ঐষধ স্প্রে করায় আগাছা দমনের বদলে পেঁয়াজ চারা মরে যাওয়ার দৃশ্য দেখা গেল। এই প্রতিবেদক ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাওয়ার খবরে একে একে কৃষকরা মাঠে এসে ভীড় জমায় ও তাদের ক্ষতিগ্রস্থ জমিগুলো দেখান সেইসাথে তাদের অভিযোগ বলতে থাকেন।

সবার একই অভিযোগ কেমিষ্ট ক্রপ কেয়ার কোম্পানীর ক্লিনিক প্লাস ঔষধ ব্যবহারে আমাদের পেঁয়াজের চারা মরে সাফ হয়ে গেছে। এসময় কৃষকদের চোখে মুখে দুশ্চিন্তার
ছাপ দেখা যায়।

উপজেলার কুশবাড়িয়া গ্রামের খবির শেখ, মোঃ আজাদ, মোঃ রাজু , মোঃ ফজলু বিশ^াস,কুদ্দুস শেখ,সাবু শেখ, হারুন শেখ,মোঃ ইদ্রিস ,মোঃ জনি , মোঃ সনেট সহ ১৫ থেকে ২০ জন কৃষকের জমিতে এই ঔষধ প্রয়োগ করায় তাদের পেঁয়াজের বীজ তলা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে জানা যায়।

কুশবাড়িয়া গ্রামের ক্ষতিগ্রস্থ পেঁয়াজ চাষী খবির শেখ জানান, আমি ৫ কেজি পেঁয়াজের বীজ প্রতি কেজি ৫ হাজার টাকা দরে কিনে ২৫ শতক জমিতে বপন করেছিলাম।

জমিতে আগাছা হওয়ায় কেমিষ্ট কোম্পানীর মার্কেটিং অফিসার মিল্টনের কথামত আগাছা দমন করার জন্য তাদের কোম্পানীর ক্লিনিক প্লাস ঔষধ স্প্রে করি এরপর ৩-৪ দিন পর এসে দেখি আমার পেঁয়াজের চারা সব মরে গেছে। এখন আমি কি করবো সেই চিন্তায় কোন কাজ করতে পাচ্ছি না। আমার অনেক টাকার ক্ষতি হয়ে গেল।

উপজেলার কুশবাড়িয়া গ্রামের আরেক পেঁয়াজ চাষী আজাদ বলেন,আমার ২০ শতক জমিতে মুড়িকাটা পেঁয়াজ ছিল ও ১০ শতক জমিতে পেঁয়াজের বীজ বপন করেছিলাম যা বড় হয়ে গিয়েছিল। কয়েকদিন পরেই লাগানোর উপযোগী হয়ে উঠতো।

আগাছা দমনের জন্য আমিরুল ইসলাম নামে স্থানীয় এক দোকান থেকে কেমিস্ট ক্রপ কেয়ার কোম্পানীর ক্লিনিক প্লাস ঔষধ স্প্রে করায় পেয়াজের চারা সব মরে গেছে আমি এর ক্ষতিপূরন চায়।

আরেক কৃষক মোঃ জাকির বলেন, এই মাঠে কৃষকরা কমপক্ষে লাল তীর কিংসহ বিভিন্ন জাতের ৫০ কেজি পেঁয়াজ দানা বপন করেছিল ।

এই পেঁয়াজ দানার চারা দিয়ে কমপক্ষে ১০০ বিঘা জমিতে পেঁয়াজ লাগানো সম্ভব হত।কিন্তু কেমিষ্ট ক্রপ কেয়ার কোম্পানীর এই ঔষধ স্প্রে করে সব চারা মরে গেছে, এই মাঠে এবার পেঁয়াজ লাগানো সম্ভব হবে না।

এই মাঠে সব মিলে কৃষকদের কোটি টাকার
মত ক্ষতি হয়ে গেল।

ক্লিনিক প্লাস ঔষধ বিক্রেতা আমিরুল ইসলাম বলেন, বিক্রয়ের জন্য আমার দোকানে আমি এই কেমিষ্ট ক্রপ কেয়ার কোম্পানীর কাছ থেকে ২৭ কার্টুন ঔষধ
ক্রয় করেছিলাম।

প্রতি বোতল ঔষধের দাম ১৩৫ টাকা ছিল। আমি ঔষধ বিক্রি না করায় কেমিষ্ট কোং মার্কেটিং অফিসার আমিরুল ইসলাম বললো ১০০ টাকা করে পিচ

বিক্রি করেন সেই মোতাবেক আমি অনেক কৃষকের কাছে এই ক্লিনিক প্লাস ঔষধ বিক্রি করেছি। এখন শুনছি এই ঔষধ ব্যবহার করায় পেঁয়াজের চারা সব মরে গেছে।

এব্যাপারে কেমিষ্ট কোম্পানীর মার্কেটিং অফিসার মোঃ মিলটন পেঁয়াজ চাষীদের কাছে ঔষধ বিক্রি করার কথা স্বীকার করে বলেন, এমন ক্ষতি হয়েছে আমি শুনেছি।

আমাদের কোম্পানীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তরা ২-১ দিনের মধ্যে আসবে তারা এসে সুরাহা করবে। আমি কোম্পানীর প্রতিনিধি আমার কোন দোষ নেই।

আমি তো আর ঔষধ তৈরী করিনি। কেমিষ্ট এ্যান্ড ক্রপ কোম্পানীর ন্যাশনাল সেলস ম্যানেজার আশরাফুল ইসলাম বলেন,আমাদের প্রতিনিধির মাধ্যমে এমন অভিযোগ আমরা পেয়েছি।

কি কারনে এমন ক্ষতি হল তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমি আগামী পরশু আসবো।

কোম্পানীর ক্ষতি হোক এমন কিছু লেখবেন না।শৈলকুপা কৃষি অফিসার মোঃ আনিসউজ্জামান বলেন , এব্যাপারে এখনো কোন অভিযোগ পাইনি।

আমি সরেজমিনে মাঠে যাব , কৃষক যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা হবে। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের জন্য কোম্পানীর কাছ থেকে কিছুটা রিকোভারী করা যায় কিনা সেদিকে আমার নজর থাকবে। সেইসাথে অবৈধ ঔষধ বিক্রেতাদের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) মোঃ বনি আমিন বলেন, এব্যাপারে অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে কৃষকদের স্বার্থে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হবে এটা মেনে নেয়া যাবে না।

কেমিষ্ট এ্যান্ড ক্রপ কোম্পানীর এই ক্লিনিক প্লাস ঔষধসহ অন্যান্য ঔষধ নিয়ে এলাকায় কৃষকদের মাঝে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে , তাদের দাবী এই কোম্পানীর সমস্থ ঔষধ বাজার থেকে তুলে নেওয়া হোক যাতে করে তাদের মত অন্যান্য কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ না হয়।।

এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন বাজারে এই কোম্পানীর এনকোজেব ব্লু, কেমোফুরান, ম্যাগপ্লাস, রেকা সালফার, জিংক মনো, দাজসহ আরো অনেক ঔষধ আছে যার কার্যকারিতা একেবারেই নেই বলে কৃষকরা জানান।

শৈলকুপা কৃষি অফিসার মোঃ আনিসউজ্জামান বলেন , এব্যাপারে এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। আমি সরেজমিনে মাঠে যাব , কৃষক যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয়
সেদিকে খেয়াল রাখা হবে।

ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের জন্য কোম্পানীর কাছ থেকে কিছুটা রিকোভারী করা যায় কিনা সেদিকে আমার নজর থাকবে। সেইসাথে অবৈধ ঔষধ বিক্রেতাদের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) মোঃ বনি আমিন বলেন, এব্যাপারে অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে কৃষকদের স্বার্থে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।

কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হবে এটা মেনে নেয়া যাবে না। কেমিষ্ট এ্যান্ড ক্রপ কোম্পানীর এই ক্লিনিক প্লাস ঔষধসহ অন্যান্য ঔষধ নিয়ে এলাকায় কৃষকদের মাঝে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে , তাদের দাবী এই

কোম্পানীর সমস্থ ঔষধ বাজার থেকে তুলে নেওয়া হোক যাতে করে তাদের মত অন্যান্য কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ না হয়।। এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন বাজারে এই কোম্পানীর
এনকোজেব ব্লু, কেমোফুরান, ম্যাগপ্লাস, রেকা সালফার, জিংক মনো, দাজসহ আরো অনেক ঔষধ আছে যার কার্যকারিতা একেবারেই নেই বলে কৃষকরা জানান।

সান্তাহারে নেশার ইজেকশানসহ ১ যুবক আটক

0

আদমদীঘি (বগুড়া ) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার সান্তাহারে ২১ পীচ নেশার ইনজেকশান অ্যাম্পুলসহ সান্তাহার টাউন পুলিশ রোনাক (৩৫) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী যুবকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃত যুবক নওগাঁ সদর উপজেলার উকিলপাড়া মহলালার বদরুল আলমের ছেলে বলে জানাগাছে।

সান্তাহার টাউন পুলিশ ফাড়ি সুত্রে জানাযায়,সান্তাহার টাউন পুলিশ ফাড়ির মাদক বিরোধী অভিযান চলাকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাত সাড়ে ৯টারদিকে শহরের হবির মোড়ে নওগাঁ থেকে বগুড়াগামী এটি বাস তল-াশি করে ২১ পীচ নেশার ইনজেকশান অ্যাম্পুলসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সর্বশেষ খবর